ঢাকা মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২

Star Sangbad || স্টার সংবাদ

আজব শহর, যেখানে মানুষ ও চিতাবাঘ একসাথে বাস করে

স্টার সংবাদ 

প্রকাশিত: ১৫:২২, ২৬ মে ২০২২

আজব শহর, যেখানে মানুষ ও চিতাবাঘ একসাথে বাস করে

শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে প্রাণী ও মানুষ নিজেদের দূরত্ব বজায় রেখে একে অপরের সাথে বসবাস করে আসছে। তবে গৃহপালিত হয়ে অনেক প্রাণী মানুষের সাথে কীভাবে বাঁচতে হয় তা শিখেছে। কিন্তু ভারতের এমন একটি জায়গা রয়েছে যেখানে মানুষ এবং প্রাণী উভয়ই একে অপরের সাথে মিলেমিশে বসবাস করে।  ভারতের রাজস্থান প্রদেশের বেরা নামের এক শহর আছে যেখানে খোদ মানুষ ও চিতা বাঘ এক সাথে বসবাস করে। এই জায়গাটিকে চিতাবাঘের বাড়িও বলা হয়। অডিটি সেন্ট্রাল-এর রিপোর্ট অনুযায়ী এই শহরে সবচেয়ে বেশি চিতাবাঘ দেখা যায়। রিপোর্ট অনুযায়ী, বেড়া শহরের ১০টি গ্রামে ১০০টি চিতাবাঘের বসবাস। কথিত আছে বহু বছর ধরে বেরা শহরে মানুষ ও চিতাবাঘ একসঙ্গে বসবাস করছে।

কথিত আছে এই গ্রামে মানুষ এবং চিতাবাঘের মধ্যে রয়েছে সম্প্রীতির বন্ধন। এ কারণে গত কয়েক বছর ধরে এখানে চিতাবাঘের আক্রমণের কোনো ঘটনা ঘটেনি। খবরে বলা হয়, বহু বছর আগে একটি চিতাবাঘ একটি ছোট শিশুটিকে মুখ চেপে ধরে নিয়ে গেলেও বনে যাওয়ার আগে শিশুটিকে বাইরে ফেলে রেখে যায়। এসময় শিশুটির কোনো ক্ষতি করেনি বাঘটি।

জানা যায় বেরা শহরের লোকেরা চিতাবাঘের সাথে এতটাই অভ্যস্ত যে, এখানে খুব সহজেই চিতা বাঘদের ঘুরে বেড়াতে দেখা যায়। এই শহরে রাবারী গোত্রের লোকজনের বসবাস। কথিত আছে রাবারী গোত্রের রাখালদের একটি উপজাতি ইরান থেকে আফগানিস্তান হয়ে রাজস্থানে পৌঁছেছিল। এই উপজাতির লোকেরা ভগবান শিবের পূজা করে। তারা বিশ্বাস করে যে চিতাবাঘটিকে ভগবান শিব শহর রক্ষা করার জন্য পাঠিয়েছিলেন। সেজন্য বাঘগুলো কখনই তাদের উপর কোন প্রকার আক্রমণ করে না।