ঢাকা রোববার, ২৩ জানুয়ারি ২০২২

Star Sangbad || স্টার সংবাদ

হাজীগঞ্জে খিরা ও শসার বাম্পার ফলনে কৃষকের মুখে হাসি

হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর) প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৫:১৪, ১৪ জানুয়ারি ২০২২

হাজীগঞ্জে খিরা ও শসার বাম্পার ফলনে কৃষকের মুখে হাসি

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে এবার খিরা ও শসার বাম্পার ফলন হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূল থাকায় কৃষক কাঙ্ক্ষিত ফলন পেয়েছেন। তাদের এখন আশা, উৎপাদিত এই সবজি বিক্রি করে তারা প্রত্যাশিত মুনাফা করবেন। বাজারেও এ দুটি সবজির দাম বেশ ভালো পাচ্ছেন বলে জানান চাষিরা।     

সরেজমিন হাজীগঞ্জ উপজেলার বদরপুর, উচ্চঙ্গা, কাজীরগাঁও, কালাচোঁ উত্তর, রাজারগাঁও এবং দ্বাদশগ্রাম ইউনিয়ন ঘুরে দেখা যায়, এসব এলাকায় ব্যাপকভাবে খিরা ও শসা আবাদ করা হয়েছে। 

এদিকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের কাজীরগাঁওয়ের কৃষকরা আগাম খিরা আবাদ করে লাভজনক অবস্থায় রয়েছেন। এছাড়া উচ্চঙ্গা, কাজীরগাঁও, কালাচোঁ উত্তর ইউনিয়নের কৃষকরা উৎপাদিত খিরা বেশ কয়েকবার বাজারেও বিক্রি করেছেন। এখন শেষ মুহূর্তে চলছে খিরা উত্তোলন। 

কালাচোঁ উত্তর ইউনিয়নের কৃষক জসিমউদ্দিন জানান, প্রায় ১৫ বছর ধরে খিরা আবাদ করছেন। এ বছর প্রায় ১ হেক্টর জমিতে আবাদ করেছেন। তারা আশা, এ বছর খিরা বিক্রি করে কমপক্ষে ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা লাভ হবে। 

সদর ইউনিয়নের উচ্চঙ্গা গ্রামের কৃষক কবির মিয়া বলেন, শুধু খিরা নয়, একই জমিতে ভুট্টা ও আখের আবাদ করি। তবে খিরা আবাদে সময় লাগে কম, ফলন হয় ভালো। তাই এলাকার অনেকেই এ সবজি আবাদ শুরু করেছেন। তিনি আরো জানান, এ বছর খিরা আবাদ করে ভালো মুনাফা হয়েছে। 

এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা দিলরুবা খানম জানান, খিরা আবাদ অনেক সহজ এবং মুনাফাও ভালো। তিনি বলেন, হাজীগঞ্জে এ বছর ব্যাপক খিরা আবাদ হয়েছে। উপজেলায় ১৫ হেক্টর জমিতে শসা ও ১০০ হেক্টরে খিরা আবাদ হয়েছে। বৃষ্টি না হওয়ায় কৃষকরা এই দুটি সবজি চাষে লাভবানও হয়েছেন। 

তিনি বলেন, প্রতি হেক্টর জমিতে খিরা চাষে খরচ হয় ৩০ হাজার টাকা। অন্যদিকে চাষী হেক্টরপ্রতি খিরা বিক্রি করেন  ৫৫ থেকে ৬০ হাজার টাকায়।

দিলরুবা খানম আরো বলেন, আগামীতে হাজীগঞ্জে ২০০ হেক্টর জমিতে খিরা ও ৫০ হেক্টর জমিতে শসা চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।