ঢাকা Saturday, 02 March 2024

ফুলবাড়ীতে লক্ষ্যমাত্রার বেশি জমিতে সরিষা চাষ

দিনাজপুর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: 19:46, 13 January 2024

ফুলবাড়ীতে লক্ষ্যমাত্রার বেশি জমিতে সরিষা চাষ

‘ঘুম হতে আজ জেগেই দেখি শিশির-ঝরা ঘাসে,/ সারা রাতের স্বপন আমার মিঠেল রোদে হাসে।/ আমার সাথে করতো খেলা প্রভাত হাওয়া, ভাই,/ সরষে ফুলের পাঁপড়ি নাড়ি ডাকছে মোরে তাই।’

পল্লীকবি জসীমউদদীনের ‘রাখাল ছেলে’ কবিতার এই অংশটুকু যেন বিরাজ করছে দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলায়। মাঠে মাঠে হলুদের সমারোহ। যেন হলুদ রঙের গালিচা বিছিয়ে রেখেছে প্রকৃতি। মাঠে দুলছে সরিষা ফুল। দেখলেই মন জুড়িয়ে যায়। 

ভোজ্যতেলের ঘাটতি মেটাতে এবং আমদানি নির্ভরতা কমাতে দিনাজপুরের ফুলবাড়ীর কৃষকদের মাঝে দিন দিন সরিষা চাষে আগ্রহ বাড়ছে। চলতি বছর এই উপজেলায় লক্ষ্যমাত্রার বেশি ৪৭৮ হেক্টর জমিতে সরিষা চাষ করা হয়েছে।

উপজেলা কৃষি দপ্তর সূত্রে জানা যায়, ভা‌লো দাম থাকায় সরিষা চা‌ষে আগ্রহ বে‌ড়ে‌ছে কৃষকদের। স‌রিষা চাষে এক‌দি‌কে যেমন তেলের ঘাট‌তি পূরণ ক‌রে আমদানি ব্যয় হ্রাস করা সম্ভব, অন্যদিকে উৎপাদ‌নের মাধ্যমে জাতীয় অর্থনী‌তি‌তেও অবদান রাখা সম্ভব। 

চলতি মৌসুমে উপজেলায় ১ হাজার ৩৪৫ হেক্টর জমিতে সরিষা চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। অর্জিত হয়েছে ১ হাজার ৮২৩ হেক্টর। এই পরিমাণ জমি থেকে ২ হাজার ৬০০ মেট্রিক টন ফলন পাওয়া যাবে। উপজেলার মোট সরিষা চাষির মধ্যে ৩৯ জন কৃষককে সরকারিভাবে সরিষা বীজ ও সার প্রণোদনা দেয়া হয়েছে। 

সরেজমিন দেখা যায়, উপজেলার পৌর এলাকাসহ সাতটি ইউনিয়নের মাঠে মাঠে হলুদের সমারোহ। ভালো ফলনের হাতছানিতে কৃষকের চোখেমুখে স্বস্তির আভা। তবে কৃষক দেশি জাতের পরিবর্তে আবাদ করেছেন উচ্চ ফলনশীল বারি জাতের সরিষা।

উপ‌জেলার এলুয়াড়ী ইউপির শ্রীরামপুর গ্রামের কৃষক লুৎফর রহমান, শহিদুল ইসলাম, মোকাররম হোসেন জানান, আমন ধান কাটার প্রায় ৯০ থে‌কে ১২০ দিন পর ইরি-বো‌রো ধান রোপণ করা হয়। অন্যদি‌কে স‌রিষা ৮০ থে‌কে ৮৫ দি‌নে ঘ‌রে তোলা যায়। অন্যান্য বছর এসব জ‌মি প‌তিত থাক‌লেও এবার স‌রিষার আবাদ হ‌চ্ছে। এছাড়া কৃ‌ষি অফিস থে‌কে বিনামূল্যে বীজ ও সার দেয়ায় স‌রিষা চা‌ষে আগ্রহ বে‌ড়ে‌ছে। স‌রিষার পাতা জমি‌তে প‌ড়ে উন্নতমা‌নের জৈব সার হি‌সে‌বে কাজ ক‌রে। ফ‌লে পরবর্তী ফস‌ল চা‌ষে রাসায়‌নিক সার কম লা‌গে। 

উপ‌জেলা কৃ‌ষি কর্মকর্তা কৃ‌ষি‌বিদ রুম্মান আক্তার ব‌লেন, কৃ‌ষির উৎপাদন বাড়াতে উপ‌জেলা কৃষি অধিদপ্তর নিরলসভা‌বে কাজ ক‌রে যা‌চ্ছে। সরিষা চাষে কৃষকদের আগ্রহ বাড়াতে নানা পরামর্শ ও প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে। দুই ফসলি জমিতে এখন তিন ফসল করে লাভবান হবেন কৃষক। গত বছর লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১ হাজার ৩৪৩ হেক্টর। এবার সরিষা চাষ হচ্ছে ১ হাজার ৮২৩ হেক্টরে। আগামী বছর আরো বাড়বে বলে আশা করছি।

তিনি আরো বলেন, স‌রিষার উৎপাদন বাড়া‌তে উপ‌জেলার ৩ হাজার ৯০০ ক্ষুদ্র ও প্রা‌ন্তিক কৃষ‌কের মা‌ঝে বিনামূল্যে স‌রিষার বীজ, ড্যাব, পটাশ সার বিতরণ করা হয়েছে। এভা‌বে স‌রিষা উৎপাদন বাড়‌তে থাকল হয়তো তেল উৎপাদ‌নে সু‌দিন ফির‌বে।