ঢাকা Wednesday, 19 June 2024

পঞ্চাশেই গুটিয়ে গেল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কা

ক্রীড়া ডেস্ক

প্রকাশিত: 18:12, 17 September 2023

পঞ্চাশেই গুটিয়ে গেল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কা

এশিয়া কাপের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কা। তাই তাদের কাছে ভালো কিছুর প্রত্যাশা থাকাটাই স্বাভাবিক। কিন্তু তার কোনো কিছুই দেখা গেল ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ সিরাজের বোলিং তোপের কাছে। তিনি একাই বলতে গেলে ধসিয়ে দিলেন লঙ্কানদের ব্যাটিং লাইনআপ। আর তাতেই ৫০ রানে অলআউট শ্রীলঙ্কা। 

রোববার (১৭ সেপ্টেম্বর) শ্রীলঙ্কার কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে এশিয়া কাপ ২০২৩-এর ফাইনালে টসে জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন লঙ্কান অধিনায়ক দাসুন শানাকা। কিন্তু তার সেই সিদ্ধান্তকে ‘বড় ভুল’ হিসেবে তুলে ধরলেন যেন ভারতীয় বোলার-ফিল্ডাররা। 

আগে ব্যাটিং করতে নেমে লঙ্কানরা খেলতে পেরেছেন কেবল ৯২ বল। এই সময়ের মধ্যে সব উইকেট হারিয়ে তারা স্কোরবোর্ডে তুলেছেন সাকল্যে ৫০ রান। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ১৭ রান এসেছে কুশল মেন্ডিসের ব্যাট থেকে। 

ভারতের হয়ে ২১ রানে ৬ উইকেট শিকার করেছেন মোহাম্মদ সিরাজ। এছাড়া হার্দিক পান্ডিয়া ৩টি এবং জসপ্রিত বুমরাহ ১টি উইকেট তুলে নিয়েছেন। 

রোববার খেলা শুরুর আগে মিনিট পাঁচেকের বৃষ্টি হয়। তারপর আর বিঘ্ন ঘটায়নি আবহাওয়া; কিন্তু বিধ্বংসী হয়ে উঠেছিল টিম ইন্ডিয়া।

ব্যাট করতে নেমে শুরুর ওভারেই ধাক্কা খেয়েছেন লঙ্কানরা। জসপ্রিত বুমরাহর বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন লঙ্কান ওপেনার কুশল পেরেরা (০)।

এরপরই শুরু পেসার মোহাম্মদ সিরাজের মহাকাব্য। ইনিংসের চতুর্থ ওভারের প্রথম বলে পাথুম নিশাঙ্কাকে ফিরিয়ে শুরু করেন তিনি। জাদেজার দুর্দান্ত ক্যাচে এই ওপেনার আউট হন ২ রান করে। এর পরের বলে সাদেরা সামাবিক্রমাকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন সিরাজ। এই ইনফর্ম ব্যাটার রিভিউ নিয়েছিলেন, কিন্তু লাভ হয়নি। চতুর্থ বলে আবারো উইকেট। এবার তার শিকার চারিথ আসালঙ্কা। 

প্রথম চার বলে ৩ উইকেট নেয়ার পর পঞ্চম বলটি ছিল হ্যাটট্রিক ডেলিভারি। সেটিতে দারুণ এক শটে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ইনিংস শুরু করেন ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা। কিন্তু পরের বলেই তিনি উইকেটের পেছনে ধরা পড়েন। ফলে এক ওভারেই ৪ উইকেট পেয়ে যান সিরাজ। 

নিজের তৃতীয় ওভারে আক্রমণে এসে আবারো উইকেট পেয়েছেন সিরাজ। চতুর্থ বলে বোল্ড করেন দাসুন শানাকাকে। ফলে নিজের করা ১৬ বলের মধ্যেই ৫ উইকেট পেয়েছেন তিনি। বল বাই বল ডেটা যখন থেকে রাখা হচ্ছে, তাতে চামিন্দা ভাসের রেকর্ড ছুঁলেন সিরাজ। ভাস ১৬তম বলে পঞ্চম উইকেটটি নিয়েছিলেন ২০০৩ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের বিপক্ষে। সেবার ভালোবাসা দিবসের ম্যাচে প্রথম ওভারেই বাংলাদেশের ৪ উইকেট নিয়েছিলেন ভাস। 

ফাইফার নিয়েই থেমে থাকেননি সিরাজ। এরপর ইনিংসের ১২তম ওভারে এসে কুশল মেন্ডিসকে ফিরিয়েছেন তিনি। সবমিলিয়ে ৭ ওভারে ২১ রানে ৬ উইকেট নিয়েছেন এই পেসার। 

সিরাজের আগুন ঝরানোর দিনে জ্বলে উঠেছিলেন হার্দিক পান্ডিয়াও। 

এরপর আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি স্বাগতিকরা। এশিয়া কাপের ফাইনালে তাদের পুঁজি ৫০ রান। ওয়ানডে ইতিহাসে এটি তাদের দ্বিতীয় সর্বনিম্ন স্কোর। ১১ বছর আগে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৪৩ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল লঙ্কানরা।