ঢাকা Tuesday, 18 June 2024

নেপাল থেকে কেনা হবে বিদ্যুৎ, মন্ত্রিসভায় প্রস্তাব অনুমোদন

স্টার সংবাদ

প্রকাশিত: 17:18, 11 June 2024

নেপাল থেকে কেনা হবে বিদ্যুৎ, মন্ত্রিসভায় প্রস্তাব অনুমোদন

ভারতের জাতীয় গ্রিড ব্যবহার করে নেপাল থেকে ৪০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানির প্রস্তাব অনুমোদন করেছেন সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা। এখন নেপালের সঙ্গে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে পাঁচ বছরের জন্য এভাবে বিদ্যুৎ আমদানির আনুষ্ঠানিক চুক্তিসহ অন্যান্য কার্যক্রম সম্পন্ন করা হবে।

মঙ্গলবার (১১ জুন) সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এই প্রস্তাব অনুমোদন পেয়েছে। 

জানা গেছে, এভাবে বিদ্যুৎ আমদানিতে প্রতি ইউনিটের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৮ টাকা ১৭ পয়সা।

মন্ত্রিসভা বৈঠকের পর প্রেস ব্রিফিংয়ে মন্ত্রিপরিষদের সমন্বয় ও সংস্কার বিভাগের সচিব মাহমুদুল হোসাইন খান বলেন, প্রতি ইউনিট ৮ টাকা ১৭ পয়সা ‘নেগোশিয়েটেড’ প্রাইসে নেপাল থেকে বিদ্যুৎ কেনার প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়েছে। প্রতিবছর আনুমানিক ১৩০ কোটি টাকা হিসাবে এই বিদ্যুৎ কিনতে পাঁচ বছরে খরচ হবে ৬৫০ কোটি টাকা। ভারতীয় গ্রিড ব্যবহার করে বাংলাদেশের কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা হয়ে এই বিদ্যুৎ দেশে ঢুকবে।

কবে নাগাদ চুক্তি হবে - সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মাহমুদুল হোসাইন খান বলেন, এটা এখনো চূড়ান্ত হয়নি। বাংলাদেশ, ভারত ও নেপালের মধ্যে ত্রিপক্ষীয় চুক্তি হবে। কারণ বিদ্যুৎ নেপালের, আসবে ভারতের সঞ্চালন লাইন হয়ে।

নেপালের বিদ্যুৎ বাংলাদেশে আসতে কতদিন লাগতে পারে - এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, সম্ভবত প্রধানমন্ত্রীর নেপালে সফর আছে। সেখানে হয়তো এই চুক্তি সম্পন্ন হবে।

উল্লেখ্য, ছয় বছর আগে নেপাল থেকে বিদ্যুৎ আমদানির আলোচনা শুরু করে বাংলাদেশ। সেই লক্ষ্যে ২০১৮ সালে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করে দুই দেশ। নেপালের ওই জলবিদ্যুৎ ভারতীয় গ্রিডলাইন ব্যবহার করে আনতে হবে বলে এ বিষয়ে ত্রিপক্ষীয় আলোচনা চলছিল এতদিন।

গত ৭ ডিসেম্বর নেপাল থেকে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে ভারত হয়ে জলবিদ্যুৎ আমদানির একটি প্রস্তাব অনুমোদন পায় অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে। এবার সেই প্রস্তাবকে অনুমোদন দিল সরকারি ক্রয় কমিটি।

সচিব মাহমুদুল হোসাইন খান আরো বলেন, এখন নেপাল ইলেক্ট্রিসিটি অথরিটি, ভারতের এনটিপিসি বিদ্যুৎ ভাইপার নিগাম লিমিটেড এবং বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ড ত্রিপক্ষীয় চুক্তি করবে। কারণ বিদ্যুৎটা নেপালের, ভারত হয়ে বাংলাদেশে এসে জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হবে। ভারতের ট্রান্সমিশন লাইন ব্যবহার করতে হবে।

তিনি জানান, প্রতি কিলোওয়াট বিদ্যুতের জন্য ভারতের ‘ট্রেডিং মার্জিন’ হবে দশমিক ০৫৯৫ রুপি।

সচিব বলেন, প্রতি ইউনিট এনার্জি মূল্য ৬ দশমিক ৪০ ইউএস সেন্ট। ট্রান্সমিশন চার্জ এখনো ফাইনাল হয়নি। ভারতের যে রেগুলেশন আছে সে অনুযায়ী এটা হবে।