ঢাকা Wednesday, 24 April 2024

আরেকটি পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে আগ্রহী বাংলাদেশ

স্টার সংবাদ

প্রকাশিত: 17:51, 2 April 2024

আরেকটি পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে আগ্রহী বাংলাদেশ

পাবনা জেলার ঈশ্বরদী উপজেলার রূপপুরে আরো একটি ‍পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করতে চায় বাংলাদেশ সরকার। এটি দুই ইউনিটের বিদ্যুৎকেন্দ্র হবে। 

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নিয়ে আলোচনা করেন রুশ রাষ্ট্রীয় পরমাণু শক্তি করপোরেশন রসাটমের মহাপরিচালক আলেক্সি লিখাচেভ। সে সময় প্রধানমন্ত্রী এই আগ্রহের কথা ব্যক্ত করেন। 

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের শেষ দিকে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের প্রথম ইউনিট থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও রসাটমের মহাপরিচালক আলেক্সি লিখাচেভের সাক্ষাৎ নিয়ে গণমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়েছে রসাটমের স্থানীয় জনসংযোগ বিভাগ।

এতে বলা হয়েছে, পরমাণু শক্তির শান্তিপূর্ণ ব্যবহার নিয়ে বাংলাদেশ-রাশিয়া কৌশলগত সহযোগিতার বিষয়গুলো স্থান পেয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আলেক্সি লিখাচেভের আলোচনায়।

আলেক্সি লিখাচেভ বলেন, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণের ক্ষেত্রে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মাইলস্টোন অর্জিত হতে যাচ্ছে। চলতি বছর শেষ হওয়ার আগেই প্রথম ইউনিট থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হবে। বর্তমানে আমরা নতুন প্রকল্প নিয়ে আলোচনা করছি। রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র এলাকায় আরো দুটি পারমাণবিক বিদ্যুৎ ইউনিট নির্মাণের ব্যাপারে বাংলাদেশ গভীর আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

আলেক্সি লিখাচেভ আরো বলেন, উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন মাল্টিপারপাস গবেষণা রিঅ্যাক্টর নির্মাণের বিষয়টিও পর্যালোচনা করা হচ্ছে। গবেষণা রিঅ্যাক্টর বিজ্ঞান ও নিউক্লিয়ার মেডিসিনের ক্ষেত্রে বিভিন্ন সমাধান দিতে সক্ষম।

উল্লেখ্য, গতকাল সোমবার (১ এপ্রিল) ঢাকায় এসেছেন রসাটমের মহাপরিচালক। এরপর তিনি নির্মাণাধীন রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প ও গ্রিন সিটি আবাসিক এলাকা পরিদর্শন করেন।

রাশিয়ার আর্থিক ও কারিগরি সহযোগিতায় রূপপুরে দুটি পারমাণবিক বিদ্যুৎ ইউনিট নির্মিত হচ্ছে। প্রতিটির উৎপাদনক্ষমতা ১ হাজার ২০০ মেগাওয়াট। সর্বাধুনিক ৩+ প্রজন্মের ভিভিইআর-১২০০ রিঅ্যাক্টর স্থাপিত হচ্ছে প্রতিটি ইউনিটে। প্রকল্পের জেনারেল ডিজাইনার ও ঠিকাদার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে রসাটমের প্রকৌশল শাখা।