ঢাকা Wednesday, 24 April 2024

‘বাবা, আমাকে বাঁচাও, আমি আটকা পড়েছি’

স্টার সংবাদ

প্রকাশিত: 11:51, 1 March 2024

‘বাবা, আমাকে বাঁচাও, আমি আটকা পড়েছি’

খালাতো বোন আলিশা, রিয়া এবং আরো তিনজন বান্ধবীর সঙ্গে বেইলি রোডের একটি রেস্তোরাঁয় খেতে গিয়েছিলেন নিমু। যখন ভবনটিতে আগুন লাগে তখন ছয়জনই ভেতরে আটকা পড়েন। 

এসময় নিমু তার বাবাকে মোবাইলে কল করে বাঁচার আকুতি জানান। তিনি বলেন, ‘বাবা, আমাকে বাঁচাও, আমি আটকা পড়েছি।’ কিন্তু হতভাগ্য বাবা আবদুল কুদ্দুস বাঁচাতে পারেননি তার প্রাণপ্রিয় সন্তানকে। 

শুক্রবার (১ মার্চ) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে উপস্থিত আবদুল কুদ্দুস এই কথাগুলো বলে আহাজারি করছিলেন। তিনি ভারাক্রান্ত কণ্ঠে বলেন, ‘মেয়েটা মৃত্যুর সময় বারবার বাবা বলে চিৎকার করেছিল।’

আলিশার মামা জানান, নিমু তার খালাতো বোন আলিশা ও রিয়াসহ পাশের বাসার আরো তিনজন বান্ধবীর সঙ্গে ভবনটির একটি রেস্তোরাঁয় খেতে গিয়েছিলেন। তারা ছয়জনই আগুনে পুড়ে মারা গেছেন।

এদিকে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, রাজধানীর বেইলি রোডের ব্যস্ততম এলাকার ওই ভবনে ছিল না কোনো অগ্নিনিরাপত্তা ব্যবস্থা। জরুরি অবস্থায় বের হওয়ারও কোনো ব্যবস্থা ছিল না। আগুনে পুড়ে যত না মানুষ মারা গেছে, তার চেয়েও বেশি মারা গেছে ধোঁয়ায় দম বন্ধ হয়ে। 

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) রাত ৯টা ৫০ মিনিটের দিকে ওই ভবনে আগুন লাগে এবং দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে দুই ঘণ্টার নিরলস চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। আগুন লাগার কারণ অনুসন্ধানে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।