ঢাকা Saturday, 02 March 2024

‘ছয় পণ্য আমদানিতে ভারতের সহযোগীতা চাওয়া হয়েছে’

স্টার সংবাদ

প্রকাশিত: 16:22, 12 February 2024

আপডেট: 16:23, 12 February 2024

‘ছয় পণ্য আমদানিতে ভারতের সহযোগীতা চাওয়া হয়েছে’

ছবি : সংগৃহীত

রমজান মাসে দেশে দ্রব্যমূল্য স্বাভাবিক রাখতে পেঁয়াজ, চিনি, ডাল, মসলাসহ ছয়টি নিত্যপণ্য আমদানির ক্ষেত্রে ভারতের সহযোগিতা চেয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে নয়াদিল্লি সফর বিষয়ে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানিয়েছেন তিনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, সফরের সময় বিভিন্ন বৈঠকে দেশটির সঙ্গে সম্পর্ক আরো বিস্তৃত করার বিষয়েও আলোচনা হয়েছে। ভারত সফরকালে দেশটির বাণিজ্যমন্ত্রী পীযুষ গোয়েলের সঙ্গে আমার বৈঠক হয়েছে। বাংলাদেশ ভারত থেকে যেসব নিত্যপণ্য আমদানি করে থাকে, সেসব পণ্যের ক্ষেত্রে আমরা ভারতের কাছে বিশেষ সহযোগিতা চেয়েছি; বিশেষ করে, ছয়টি নিত্যপণ্যের জন্য। আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে ভারতের বাণিজ্যমন্ত্রী ৫০ হাজার মেট্রিক টন চিনি এবং ২০ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ এখনই ছাড় করার কথা বলেছিলেন। আমি ১ লাখ মেট্রিক টন চিনি এবং ৫০ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ চেয়েছি।

আসন্ন রমজানকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশে নিত্যপণ্যের দাম স্বাভাবিক রাখতেই সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, ভারতের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন তিনি। এ ব্যাপারে আমাদের প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করা হয়েছে। আনুষ্ঠানিকভাবে ভারতের রাষ্ট্রপতিকে আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হয়েছে বলেও জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া মিয়ানমারের সেনাদের বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, মিয়ানমারের সেনাদের খুব শিগগিরই ফেরত পাঠানোর বিষয়ে কাজ চলছে। নিরাপত্তাজনিত কারণে দিন-ক্ষণ প্রকাশ করতে পারছি না।

প্রেস ব্রিফিংয়ে মন্ত্রী মিয়ানমার প্রসঙ্গে আরো বলেন, বাংলাদেশ ও ভারত-উভয় দেশেরই মিয়ানমারের সঙ্গে সীমান্ত রয়েছে। মিয়ানমারে যদি কোনো কিছুর উদ্রেক ঘটে, তাহলে সেটি আমাদেরকে যেমন ক্ষতিগ্রস্ত করে, উদ্বিগ্ন করে, তাদেরও উদ্বিগ্ন করে। দুই দেশের উদ্বেগ তাদের প্রতিবেশী নিয়ে। সুতরাং, আমাদের একসঙ্গে কাজ করার অনেক বিষয় আছে। আমরা এগুলো নিয়ে কাজ করার বিষয়ে আলোচনা করেছি।

রাখাইনের রাজধানী সিত্তে থেকে বাংলাদেশ কনসুলেটের কূটনীতিকদের সরিয়ে নেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে বলেও জানান তিনি।

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শংকরের আমন্ত্রণে ৭ থেকে ৯ ফেব্রুয়ারি দিল্লি সফর করেন হাছান মাহমুদ। সফরকালে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পাশাপাশি দেশটির প্রেসিডেন্ট, ভাইস প্রেসিডেন্ট, বাণিজ্যমন্ত্রী ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টার সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি।