ঢাকা Tuesday, 18 June 2024

টানা তৃতীয়বার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন মোদি

স্টার সংবাদ

প্রকাশিত: 20:25, 9 June 2024

টানা তৃতীয়বার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন মোদি

ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে টানা তৃতীয়বারের মতো শপথ নিয়েছেন বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটের নেতা নরেন্দ্র মোদি।

রোববার (৯ জুন) দেশটির রাজধানী নয়াদিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে সন্ধ্যা ৭টা ২৫ মিনিটে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানে তাকে শপথবাক্য পাঠ করান রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মু।

প্রসঙ্গত, জওহরলাল নেহরুর পর মোদিই প্রথম ব্যক্তি যিনি টানা তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব কাঁধে তুলে নিলেন। অবশ্য গতবারের মতো এবার একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি বিজেপি। সেক্ষেত্রে শরিকদের ওপর নির্ভর করেই দেশ চালাতে হবে নরেন্দ্র মোদিকে। 

রোববার সন্ধ্যা ৭টার একটু পর শুরু হয় ভারতের নতুন মন্ত্রিসভার শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান। এর কিছুক্ষণ পরই রাষ্ট্রপতির কাছে শপথবাক্য পাঠ করেন মোদি। এরপর একে একে শপথ পড়েন মন্ত্রিসভার আরো বেশ কয়েকজন সদস্য।

তাদের মধ্যে আছেন - গত মন্ত্রিসভায় প্রতিরক্ষামন্ত্রী তথা লখনৌর সাংসদ রাজনাথ সিংহ, গত মন্ত্রিসভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা গুজরাতের গান্ধীনগরের বিজেপি সাংসদ অমিত শাহ, বিদায়ী কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় সড়ক পরিবহনমন্ত্রী তথা মহারাষ্ট্রের নাগপুরের বিজেপি সাংসদ নিতিন গড়কড়ী, তার পর মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন বিজেপি সভাপতি জেপি নড্ডা, মধ্যপ্রদেশের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী তথা ওই রাজ্যেরই বিদিশা কেন্দ্রের নির্বাচিত সাংসদ শিবরাজ সিংহ চৌহান, বিদায়ী কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার অর্থমন্ত্রী তথা রাজ্যসভার সাংসদ নির্মলা সীতারামন, বিদায়ী কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার পররাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ এস জয়শঙ্কর, হরিয়ানার সাবেক মুখ্যমন্ত্রী তথা এবার হরিয়ানার কার্নাল লোকসভা কেন্দ্র থেকে জয়ী হওয়া প্রবীণ বিজেপি নেতা মনোহরলাল খট্টর ও ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী এইচডি দেবগৌড়ার পুত্র তথা জেডিএস নেতা এইচডি কুমারস্বামী।

এদিকে এই শপথগ্রহণ উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ভবনে জমকালো অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। নেয়া হয়েছে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা। অনুষ্ঠানে আট হাজারের বেশি অতিথির জন্য ব্যবস্থা করা হয়েছে। তারা এরই মধ্যে তাদের আসন গ্রহণ করেছেন।

নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে এই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার সঙ্গে রয়েছেন তার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুল। 

নরেন্দ্র মোদির শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে সাত দেশের প্রধানদের। শেখ হাসিনা ছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত আছেন মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট ডক্টর মোহাম্মদ মুইজ্জু, শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট রনিল বিক্রমাসিংহে, সেশেলসের ভাইস প্রেসিডেন্ট আহমেদ আফিক, মরিশাসের প্রধানমন্ত্রী প্রবিন্দ জুগনাউথ, নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কমল দাহল প্রচন্ড এবং ভুটানের প্রধানমন্ত্রী শেরিং তোবগে। 

রোববার সকালে প্রধানমন্ত্রী মোদি জাতির পিতা মহাত্মা গান্ধী এবং দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর সমাধিতে পৌঁছে শ্রদ্ধা জানান। তিনি জাতীয় যুদ্ধ স্মৃতিসৌধ পরিদর্শন করেন এবং শহীদ সেনাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। তিনি প্রথমে মহাত্মা গান্ধীর সমাধি রাজঘাটে পৌঁছে জাতির পিতার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এর পরে তিনি প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর সমাধি ‘সদাইব অটল’ পরিদর্শন করে শ্রদ্ধা জানান। এরপর প্রধানমন্ত্রী জাতীয় যুদ্ধ স্মৃতিসৌধে গিয়ে শহীদ সেনাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। সেখানে তিন বাহিনীর প্রধানরা তাকে স্বাগত জানান। এ সময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন প্রবীণ বিজেপি নেতা রাজনাথ সিংও।

প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের লোকসভা ভোটে এনডিএর জয়ের পর রাষ্ট্রপতি ভবনের সামনের উঠানে বিপুলসংখ্যক আমন্ত্রিতের সামনে শপথ নেন মোদি। সে বছর ২৬ মে তাকে শপথবাক্য পাঠ করান তৎকালীন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি। 

২০১৯ সালের ৩০ মে দ্বিতীয়বার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে একই স্থানে শপথ নেন মোদি। শপথবাক্য পাঠ করান তৎকালীন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। এবারও সেই একই জায়গায় শপথ অনুষ্ঠান হয়েছে।