ঢাকা Tuesday, 18 June 2024

বাবার লাশের টুকরো হলেও ছুঁয়ে দেখতে চাই : ডরিন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: 19:47, 24 May 2024

বাবার লাশের টুকরো হলেও ছুঁয়ে দেখতে চাই : ডরিন

কলকাতায় নৃশংসভাবে হত্যার শিকার ঝিনাইদহ-৪ (কালীগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনারের কন্যা মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন তার পিতার হত্যার বিচার চেয়েছেন। তিনি কাঁদতে কাঁদতে বলেছেন, আমার বাবার লাশের একটা টুকরো মাংস হলেও চাই। যে মাংসের টুকরো ছুঁয়ে দেখতে পারি। সে মাংসের টুকরোকেই বাবা মনে করে জানাজা ও দাফন-কাফন করতে চাই।

আনোয়ারুল আজীম আনারকে নৃশংসভাবে হত্যার সুষ্ঠু বিচার ও হত্যার পরিকল্পনাকারীকে গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে আয়োজিত মানববন্ধনে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন এসব কথা বলেন। 

শুক্রবার (২৪ মে) বিকেল ৫টার দিকে কালীগঞ্জ পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দারা শহরের মেইন বাসস্ট্যান্ডে এই কর্মসূচির আয়োজন করে। মানববন্ধন চলাকালে ঝিনাইদহ-যশোর মহাসড়কে আধাঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ ছিল।

মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন বলেন, প্রধানমন্ত্রী বাবা হারানোর ব্যথা-কষ্ট বোঝেন। তিনি আমার বাবা হারানোর বেদনা বুঝবেন। তার বাবার হত্যার বিচার করেছেন, আমার বাবা হত্যার বিচারও করবেন। হত্যার পরিকল্পনাকারীকে ধরার পরই খতিয়ে দেখা যাবে আসলে সে এত বড় অপকর্ম কেন ঘটালো। এর বিচার অবশ্যই হবে।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। গতকালও কথা বলেছি। আমরা আইনের আশ্রয় নেব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আছেন, আওয়ামী লীগের দলীয় সর্বোচ্চ অভিভাবকরা আছেন, তারা আমাদের পরামর্শ দেবেন এবং তারা অবশ্যই তাদের দলীয় এমপি হত্যার সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা করবেন। কালীগঞ্জের মানুষের সুখে-দুঃখে যিনি সবসময় পাশে থেকেছেন সেই মানুষটির হত্যার বিচার আমরা চাই। আমরা কোনো শৃঙ্খলাহানি করতে চাই না।

ডরিন বলেন, ওপরে যদি আল্লাহ থাকে তাহলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস তিনি এর বিচার করবেন। এ হত্যাকাণ্ডের জন্য অনেকদিন ধরেই তারা পরিকল্পনা করেছে। তারা সাজিয়ে-গুছিয়ে নিয়েই এ ধরনের বড় একটা অপরাধ ঘটিয়েছে। সুষ্ঠু তদন্ত করেন কারা আছেন এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে। যার নাম আসছে তাকে বিদেশ থেকে নিয়ে আসেন। কান টানলে মাথা আসবে। যদি তার ওপরেও কেউ থেকে থাকে তার নামটিও খতিয়ে দেখেন। আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তদন্ত করে বিষয়টি দেখুন। রাজনৈতিক-অরাজনৈতিক যেটাই হোক না কেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখেন।

নিজের বাবা প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, আমার বাবার কালীগঞ্জে এতটাই জনপ্রিয়তা ছিলেন তার জনপ্রিয়তা দেখেই তাকে আটকানোর জন্য তার নামে মিথ্যা মামলা-অপপ্রচার করা হয় একসময়। পরবর্তীতে এসব মামলা সব মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে। তার প্রমাণও আমাদের কাছে আছে।

মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন কালীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আশরাফুল আলম আশরাফ। এ সময় নবনির্বাচিত উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শিবলী নোমানী, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমান মতি, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হোসেনসহ আওয়ামী লীগের সকল ইউনিটের নেতাকর্মী ও এলাকাসী উপস্থিত ছিলেন। 

প্রসঙ্গত, গত ১২ মে সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার চিকিৎসার জন্য দর্শনার গেদে বন্দর দিয়ে ভারতের কলকাতায় যান। পরে ২২ মে তার হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি জানাজানি হয়। এরপর শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে তার মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন ঢাকা থেকে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের বাড়িতে পৌঁছান। এসময় আশপাশ থেকে দলীয় নেতাকর্মীরা আনারের বাসার সামনে উপস্থিত হন এবং তার সঙ্গে কথা বলেন।

এমপি আনারের বাল্যবন্ধু গোলাম রসুল বলেন, আমরা বিভিন্ন মিডিয়ার মাধ্যমে জানতে পেরে যা বিশ্লেষণ করে বুঝতে পারছি, তার খুনের পরিকল্পনা করা হয়েছে দুই তিনমাস ধরে। পরিকল্পনা করে তাকে সুকৌশলে নিয়ে গিয়ে এ হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে।

তিনি বলেন, সরকারের কাছে দাবি, যেকোনো মূল্যে শাহীনকে (বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক আক্তারুজ্জামান শাহীন) যদি ধরে এনে আইনের আওতায় আনা যায়, তাহলে এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে তৃণমূল পর্যন্ত কারা জড়িত আছে সবকিছু বের হয়ে আসবে।