ঢাকা Wednesday, 24 April 2024

নারায়ণগঞ্জে গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা, গুরুতর আহত স্বামী

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: 14:15, 1 March 2024

আপডেট: 14:16, 1 March 2024

নারায়ণগঞ্জে গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা, গুরুতর আহত স্বামী

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে দিপালী রানী (৪২) নামে এক গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। একইসঙ্গে তার স্বামী শ্যামল চন্দ্র দাসকে (৫০) কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে দুর্বৃত্তরা।

শুক্রবার (১ মার্চ) সকালে বন্দরের লেজাস এলাকার একটি বাড়ি থেকে পুলিশ দিপালী রানীর মরদেহ নিয়ে যায় এবং গুরুতর আহত স্বামীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।  

রাতের যেকোনো সময় এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন দিপালী রানীর মেয়ে মলি।

এদিকে গুরুতর আহত স্বামী শ্যামা চন্দ্র দাস গলায় ও সারাদেহে মারাত্মক ছুরিকাঘাত নিয়ে হাসপাতালে যাওয়ার আগে পরিবার ও স্থানীয়দের জানিয়ে গেছেন রাতে কারা তাদের ওপর হামলা করেছে।  

তিনি জানান, বাড়িওয়ালার কথিত বোন (ধারণা করা হচ্ছে ফরিদা নামে এক কেয়ারটেকার) তাদেরকে কুপিয়েছে।

এ ঘটনায় বাড়ির ভাড়াটিয়া ও ম্যানেজার ফরিদা বেগম ও ছেলে সিয়ামকে আটক করা হয়েছে। তবে ফরিদার স্বামী পলাতক আছেন।

মলি জানান, আমরা চার বোন। দুই বোন বিয়ের পর জামাইয়ের বাড়িতে থাকে। পাশের বাড়িতে বিয়ের অনুষ্ঠান থাকায় উচ্চ শব্দ ছিল। সেখানে আমি ও আমার বোন যাই। পরে সেখান থেকে এসে দরজা খোলা পেয়ে ভেতরে প্রবেশ করে শুয়ে পড়ি। সকালে মাকে গার্মেন্টসে যাওয়ার জন্য ডাকতে গেলে দেখি রক্তাক্ত অবস্থা। তখন দেখি বাবা বেঁচে আছেন। তিনি আমাদের মায়ের হত্যাকারীদের বিবরণ দিয়ে গেছেন।

মলি জানান, ফরিদার সঙ্গে চুলার রান্না নিয়ে দ্বন্দ্ব ছিল তাদের। সেই দ্বন্দ্ব থেকেই তার মাকে হত্যা ও বাবাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে।  

বন্দর থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) আবু বকর সিদ্দিক জানান, গুরুতর আহত স্বামীকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে এবং স্ত্রীর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সদর জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। নিহতের মেয়ের অভিযোগে ইতোমধ্যে ফরিদা ও তার ছেলেকে আটক করা হয়েছে। ফরিদার পলাতক স্বামী ফরিদকে আটক করতে পুলিশ কাজ করছে বলেও জানান তিনি।