ঢাকা Saturday, 02 March 2024

আখাউড়ায় আ.লীগ নেতাকে মারধর, আটক ৭  

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

প্রকাশিত: 17:04, 7 December 2023

আখাউড়ায় আ.লীগ নেতাকে মারধর, আটক ৭  

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী চৌধুরীর ওপর হামলা চালিয়ে মারধরের ঘটনায় পুলিশ পৌর কাউন্সিলরসহ সাতজনকে গ্রেপ্তার করেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে মামলাসহ তাদেরকে আদালতে সপোর্দ করেছে পুলিশ। 

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো, পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইব্রাহিম মিয়া সুজন(৩২), রবিন মিয়া (২৩), মোঃ হিমেল (২০), আশরাফুল (২২), প্রীতম ঘোষ (২৯), মোঃ সাব্বির হোসেন (২০), রিয়াজ (২৮)। আটককৃতদের সবার বাড়ি আখাউড়া পৌর শহরের বিভিন্ন মহল্লায়। 

আটকতৃদের মধ্যে পৌর কাউন্সিলর সুজন ও সাব্বিরকে তাৎক্ষণিকভাবে আটক করলেও বাকিদের পুলিশ রাতে গ্রেপ্তার করে।

জানা যায়, বুধবার বিকালে পৌরশহরের সড়কবাজারের দরদী ফার্মেসীর সামনে একটি চেয়ারে বসাছিলেন উপজেলা আওয়ামলী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী চৌধুরী।  এ সময় কয়েকজন যুবক এসে তার সাথে প্রথমে তর্কে জড়ান। পরে তাকে টেনে  সড়কের মাঝখানে নিয়ে যায়। এরই মাঝে কাউন্সিল সুজন ও তার ভাইসহ দলবল নিয়ে এসে  মারধর শুরু করে। এসময় স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে আওয়ামী লীগ নেতাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

আওয়ামী লীগ নেতার স্ত্রী ঊষা বেগম জানান, বুধবার বিকালের দিকে কাউন্সিলরসহ ৪/৫ জন লোক বাড়ির ফটকে আঘাত করতে থাকেন। ফটক খুলতেই তারা ভিতরে ঢুকে ভাঙচুর শুরু করে এবং তার স্বামীকে খোঁজ করেন। না পেয়ে তারা তার পিঠে ও পায়ে লাঠি দিয়ে আঘাত করে আহত করে। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতা জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার পিছনে অনেকেই জড়িত।
এদিকে রাতেই হামলা ও মারধরের শিকার উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতার ভাতিজা রোহান চৌধুরী বাদী হয়ে থানায় ডাকাতি ও দ্রুত বিচার আইনে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন। মামলার এজাহারে ১৮ জনের নাম উল্লেখ ও  ৮/১০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়।

আখাউড়া থানার পুলিশ পরিদর্শক ও অফিসার ইনচার্জ মোঃ আসাদুল ইসলাম বলেন, মামলার এজাহারভূক্ত সাতজন আসামিকে আটক করা হয়েছে। বাকিদের ধরতে পুলিশ চেষ্টা করছে।