ঢাকা বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১

Star Sangbad || স্টার সংবাদ

টাইগারদের ভাবনায় এখন টেস্ট সিরিজ

ক্রীড়া ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:১৮, ২৪ নভেম্বর ২০২১

টাইগারদের ভাবনায় এখন টেস্ট সিরিজ

ঘরের মাঠে পাকিস্তানের বিপক্ষে লড়াই করেও শেষ পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি সিরিজ খুইয়েছে টাইগাররা। তবে এসব নিয়ে ভাববার সময় নেই লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের। কারণ খেলায় হার-জিত মুদ্রার এপিট ওপিঠের মতোই। এখন সাদা পোশাকে রঙিন বলে কীভাবে পাকিস্তানকে বধ করা যায়, তা ভাবছেন মুমিনুল হকরা। দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচটি খেলতে গতকাল চট্টগ্রামে পৌঁছেছে বাংলাদেশ ও পাকিস্তান টেস্ট দল।

দুদলের ক্রিকেটাররা একই ফ্লাইটে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম গিয়েছেন। এদিন দুপুর ২টা ৪৫ মিনিটে একটি চার্টার্ড ফ্লাইটে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করে। দুদলের মধ্যে প্রথম টেস্ট ম্যাচটি হবে আগামী ২৬ নভেম্বর। ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম। আগামী ১ ডিসেম্বর দুপুর ২টা ৩০ মিনিটে একটি চার্টার্ড ফ্লাইটে একসঙ্গে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় ফিরবে বাংলাদেশ ও পাকিস্তান। সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচটি শুরু হবে ৪ ডিসেম্বর।

এদিকে আজ চট্টগ্রামে প্রথমে অনুশীলন করবে পাকিস্তান দল। সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত তিন ঘণ্টা অনুশীলনে ঘাম ঝরাবে সফরকারীরা। একই দিন দুপুর দেড়টা থেকে বিকাল ৪টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত অনুশীলন করবে মুমিনুল বাহিনী। আগামীকাল বাংলাদেশ দল সকালে এবং পাকিস্তান দল দুপুরে অনুশীলন করবে।

এছাড়া গত পরশু টি-টোয়েন্টি সিরিজ শেষে রাতে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে প্রথম টেস্টের জন্য ১৬ জনের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এই স্কোয়াডে প্রথমবার সুযোগ পেয়েছেন যুব বিশ্বকাপজয়ী দলের ব্যাটার মাহমুদুল হাসান জয়। আরো আছেন পেসার রেজাউর রহমান রাজা। চলতি বছরের মার্চে সর্বশেষ টেস্ট খেলেছিল বাংলাদেশ দল। ওই সিরিজের ১৮ জনের দল থেকে এবার বাদ পড়েছেন চারজন। তারা হলেন- মাহমুদউল্লাহ, তামিম ইকবাল, তাসকিন আহমেদ ও শরিফুল ইসলাম।

সাকিব আল হাসান স্কোয়াডে থাকলেও তার খেলা নির্ভর করছে ফিটনেসের ওপর। সে হিসাব-নিকাশ করেই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে স্কোয়াডে রেখেছেন নির্বাচকরা। তাছাড়া মাহমুদউল্লাহ জিম্বাবুয়ে সিরিজ খেলেই টেস্ট থেকে অনানুষ্ঠানিকভাবে এক রকম বিদায় নিয়ে নিয়েছেন। তামিম জিম্বাবুয়ে সিরিজে দলে থাকলেও ইনজুরির কারণে পাকিস্তানের বিপক্ষে নেই। এমনকি জিম্বাবুয়ে সিরিজেও ম্যাচ খেলেননি তিনি। আর শেষ টি-টোয়েন্টিতে হাতে আঙুলে চোট পেয়েছেন তাসকিন। ফলে ইনজুরির জন্য প্রথম টেস্ট থেকে ছিটকে গেছেন তিনি। উরুর ইনজুরিতে নেই শরিফুল। এখানেই শেষ নয়। ফের কবে জাতীয় দলের হয়ে তামিম মাঠে নামবে এমন প্রতিক্ষায় দিন গুনছেন ভক্তরা। কিন্তু তাদের জন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী।

বুড়ো আঙুলের চোটের কারণে আসন্ন নিউজিল্যান্ড সফর থেকেও ছিটকে গেলেন বাংলাদেশের এ ওপেনার তামিম ইকবাল। নেপালে এভারেস্ট প্রিমিয়ার লিগে খেলার সময় পাওয়া চোট থেকে সেরে উঠতে এক মাস তামিমকে বিশ্রাম নিতে হবে বলে জানিয়েছেন বিসিবির প্রধান চিকিৎসক। তামিমের বিষয় দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, চোটের অবস্থা নিয়ে একজন ফিজিশিয়ানের সঙ্গে আলোচনা করেছেন তামিম। তাকে এক মাসের বিশ্রামে থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। তার কোনো অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন নেই। কিন্তু বিশ্রামের জন্য নিউজিল্যান্ড সফরে যেতে পারবেন না তামিম।

এদিকে পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে প্রথমবার সুযোগ পেয়েছেন মাহমুদুল হাসান জয়। তরুণ এই ব্যাটসম্যান ৬টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলেছেন। ১০ ইনিংসে দুই সেঞ্চুরি ও এক হাফসেঞ্চুরিতে তার সংগ্রহ ৪৬০ রান। সর্বোচ্চ ১২১। চলমান জাতীয় লিগেই ২টি সেঞ্চুরি পেয়েছেন তিনি। চট্টগ্রাম বিভাগের হয়ে খেলা এই ব্যাটার ঢাকা মেট্রোর বিপক্ষে ১১২ ও ২৯ রান করেন। এরপর বরিশাল বিভাগের বিপক্ষে খেলেন ১২১ রানের ইনিংস।

তাছাড়া আরেক নতুন মুখ পেসার রাজা ঘরোয়া ক্রিকেটে নিয়মিত বোলিং করে আসছেন। বোলিংয়ের পাশাপাশি ব্যাটিংটাও ভালো করতে পারেন তিনি। ২২ বছর বয়সি এই পেসার চলতি জাতীয় লিগেও দুর্দান্ত বোলিং করে আসছেন। ১০ ম্যাচে তার উইকেট সংখ্যা ৩৩। সিলেটের এই ক্রিকেটার খুলনার বিপক্ষে ৩৯ রান করার পাশাপাশি দুই ইনিংস মিলিয়ে ৮ উইকেট নিয়েছিলেন।

তাই এই দুজনকে দলে নেয়ার কারণ ব্যাখ্যা করেছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। তিনি মাহমুদুল হাসান জয়কে নেয়ার কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে বলেন, মাহমুদুল হাসান জয়ের জন্য হয়তো একটু তাড়াতাড়িই হলো। তারপরও সে ফর্মে আছে। আমরা ইনফর্ম পারফরমার হিসেবে তাকে বিবেচনায় এনেছি। আর সবচেয়ে বড় কথা, এরই মধ্যে সে দীর্ঘ পরিসরের ক্রিকেটে খুব ভালো টেম্পারমেন্ট দেখিয়েছে।

আশা করি তরুণ এই ক্রিকেটার পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্টে ভালো খেলবে। আর পেসার রাজাকে টেস্ট দলে নেয়ার কারণটা আপনারা আগেই জেনেছেন। কারণ যেহেতু দুই দ্রুতগতির বোলার তাসকিন ও শরিফুল আহত, তাই তাদের বিকল্প হিসেবেই আসলে রাজাকে নেয়া হয়েছে। তাছাড়া আমরা রাজাকে বেশ ভালোভাবে লক্ষ্য করেছি। সে বেশ শক্ত সামর্থ্য খেলোয়াড়। তার উইকেট নেয়ার প্রবণতাও বেশ ভালো।

এর আগে ২০১৫ সালের মে মাসে পাকিস্তানের বিপক্ষে ঘরের মাঠে সর্বশেষ টেস্ট খেলেছিল মুমিনুল হকরা। যদিও ২০২০ সালে পাকিস্তান সফরে গিয়ে ২টি টেস্ট খেলেছিল তারা। দীর্ঘ ছয় বছর পর ফের ঘরের মাঠে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ খেলার সুযোগ পেল টাইগাররা। তবে যাই হোক সময় বলে দেবে কেমন লড়াই করবে দুদল। যেহেতু ঘরের মাঠ তাই জয় তুলে নিতে সব চেষ্টাই করবেন মুমিনুল-মুশফিকরা। তাছাড়া পাকিস্তানের বিপক্ষে তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচেই দুর্দান্ত লড়াই করছে লার-সবুজের প্রতিনিধিরা। এমনকি তৃতীয় ম্যাচেও শেষ দিকে সম্ভাবনা জাগিয়ে জিততে পারেনি মাহমুদউল্লাহরা।

প্রথম টেস্টের জন্য বাংলাদেশ দল : মুমিনুল হক (অধিনায়ক), সাদমান ইসলাম, সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, লিটন দাস, নুরুল হাসান সোহান, মেহেদী হাসান মিরাজ, নাঈম হাসান, তাইজুল ইসলাম, এবাদত হোসেন, আবু জায়েদ রাহী, ইয়াসির আলী, মাহমুদুল হাসান জয়, রেজাউর রহমান রেজা ও সাকিব আল হাসান (ফিট থাকা সাপেক্ষে)।

পাকিস্তান টেস্ট দল : বাবর আজম (অধিনায়ক), আব্দুল্লাহ শফিক, আবিদ আলী, আজহার আলী, ফাওয়াদ আলম, ইমাম-উল হক, কামরান গোলাম, সউদ শাকিল, মোহাম্মদ রিজওয়ান (উইকেটরক্ষক), সরফরাজ আহমেদ (উইকেটরক্ষক), ফাহিম আশরাফ, মোহাম্মদ নাওয়াজ, বিলাল আসিফ, হাসান আলী, মোহাম্মদ আব্বাস, নাসিম শাহ, নোমান আলী, সাজিদ খান, শাহীন শাহ আফ্রিদি ও জাহিদ মাহমুদ।