ঢাকা রোববার, ২৩ জানুয়ারি ২০২২

Star Sangbad || স্টার সংবাদ

প্রশাসন-২০২১ : প্রশংসিত-বিতর্কিত যত কর্মকাণ্ড 

মেহেদী হাসান

প্রকাশিত: ১০:৫৮, ৩১ ডিসেম্বর ২০২১

প্রশাসন-২০২১ : প্রশংসিত-বিতর্কিত যত কর্মকাণ্ড 

আজ শুক্রবার (৩১ ডিসেম্বর) ২০২১ সালের শেষ দিন। বিদায়ী বছরে করোনা মহামারির বিধিনিষেধের মধ্যে নানা কর্মকাণ্ডে যেমন প্রশংসিত হয়েছে প্রশাসন, তেমনি বিতর্কিতও হয়েছে কিছু ঘটনা ও কর্মকর্তাদের কারণে। বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের মধ্যে মাঠপর্যায়ে জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে প্রশাসনের কর্মকর্তাদের বৈরিতা, জামালপুরের ডিসির দণ্ড মওকুফ, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নথি গায়েব ছিল উল্লেখযোগ্য। 

এদিকে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সম্পদের হিসাব বিবরণী ইস্যু নিয়ে সরকারের আমলাদের পিছুটান ভারি করে সমালোচনার খাতা।

বরিশালের সিঅ্যান্ডবি সড়কে গত ১৮ আগস্ট রাতে উপজেলা পরিষদ কম্পাউন্ডে শোক দিবসের ব্যানার অপসারণকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে রাতভর সংঘর্ষ হয়। এ সময় সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মুনিবুর রহমানের সরকারি বাসভবনেও হামলা চালানো হয়। এ ঘটনায় করা মামলায় বরিশালের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহকে হুকুমের আসামি করা হয়। বিষয়টি রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এবং প্রশাসনের মধ্যে দ্বন্দ্বে রূপ নেয়। এ নিয়ে ১৯ আগস্ট প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তাদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের বিবৃতিতে প্রশাসনের দূরদর্শিতা এবং দায়িত্ববোধ নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। ফলে রাজনীতিবিদ ও প্রশাসনের কর্মকর্তাদের মধ্যে বিভেদ স্পষ্ট হয়ে ওঠে। অবশ্য পরবর্তীকালে উভয় পক্ষ আলোচনার মাধ্যমে সমঝোতা হয়।  

কুমিল্লার বুড়িচংয়ে গত ৪ অক্টোবর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোছাম্মৎ সাবিনা ইয়াছমিনকে ‘আপা’ সম্বোধন করায় জামাল উদ্দিন নামে স্থানীয় এক ব্যবসায়ীকে ‘মা’ ডাকতে বলেন ওই ইউএনও। 

৩০ মে মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা অনিরুদ্ধ দাশকে এক সাংবাদিক ‘স্যার’ না ডেকে ‘ভাই’ বলে সম্বোধন করায় বিরক্ত হন তিনি। তার ভাষ্য, আপনি জানেন এই চেয়ারে বসতে আমাদের কত কষ্ট করতে হয়েছে? 

গত ৮ জুলাই মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার ইউএনও রুনা লায়লাকে ‘আপা’ বলায় তার নির্দেশে এক ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে আহত করারও অভিযোগ ওঠে। এসব ঘটনায় জনপ্রশাসন থেকে এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে সরকারি কর্মকর্তাদের স্যার সম্বোধন করার দরকার নেই বলে জানায়।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব রওনক মাহমুদের মায়ের সেবায় এক উপ-সচিবসহ ২৪ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে দায়িত্ব দেয়ার ঘটনা সমালোচনার জন্ম দেয়। করোনা আক্রান্ত হয়ে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের করোনা ইউনিটে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি। যদিও তিনি তা অস্বীকার করেন।

ফুলগাছ খাওয়ার অভিযোগে বগুড়ার আদমদীঘির ইউএনও সীমা শারমিন ১৭ মে একটি ছাগলের মালিকের ২ হাজার টাকা জরিমানা করেন। ৯ দিন পর মালিককে না জানিয়ে সেটি বিক্রি করার অভিযোগ ওঠে। এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশের পর সেই জরিমানার টাকা নিজে পরিশোধ করে ছাগলটি মালিকের কাছে ফিরিয়ে দেন ইউএনও। এ ঘটনার পর ইউএনও সীমা শারমিনকে বদলি করা হয়।

বিধিনিষেধের মধ্যে ২ জুলাই চেম্বারে যাওয়ার পথে ডা. ফরহাদ কবিরকে সাতকানিয়া ইউএনও এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. নজরুল ইসলামের চেকপোস্টে তল্লাশির মুখে পড়েন। এ সময় তাকে জরিমানাও করা হয়। বিষয়টি নিয়ে সমালোচনা হলে ৪ জুলাই ইউএনও নজরুল ইসলামকে ওএসডি করা হয়।  

নারায়ণগঞ্জে গত ১৯ মে ৩৩৩ নম্বরে কল করে খাদ্য সহায়তা চেয়েছিলেন সদর উপজেলার ফরিদ আহমেদ। উপজেলা প্রশাসনের লোকজন গিয়ে জানতে পারেন সাহায্য চাওয়া ওই ব্যক্তি চারতলা বাড়ি এবং হোসিয়ারি কারখানার মালিক। সদরের ইউএনও আরিফা জহুরা অযথা হয়রানি ও সময় নষ্ট করার দায়ে ফরিদ আহমেদকে শাস্তি হিসেবে ১০০ গরিব লোকের মধ্যে খাদ্য সহায়তা বিতরণের নির্দেশ দেন। সেটি না করলে তিন মাসের কারাদণ্ড হতে পারে বলে জানান তিনি। এই ভয়ে ঋণ করে ও সোনা বন্ধক রেখে আদেশ পালন করেন ফরিদ আহমেদ। কিন্তু মূলত সম্পদের মালিক ছিলেন না ফরিদ। বিষয়টি নিয়ে সমালোচনার পর তদন্ত করে প্রশাসন।  

এদিকে মধ্যরাতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে সাংবাদিককে ঘর থেকে তুলে নিয়ে হয়রানিমূলকভাবে কারাদণ্ড দেয়ার ঘটনায় কুড়িগ্রামের সাবেক ডিসি সুলতানা পারভীনের দুই বছরের জন্য বেতন বৃদ্ধি স্থগিত করেছিল সরকার। সেই দণ্ড বাতিল করে অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়ে গত ২৩ নভেম্বর প্রজ্ঞাপন জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। এই ঘটনায় ব্যাপক সমালোচনার তৈরি হয়।

নারী অফিস সহকারীর সঙ্গে আপত্তিকর ভিডিও প্রকাশের ঘটনায় জামালপুরের সাবেক ডিসি আহমেদ কবীরের বিরুদ্ধে বিভাগীয় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিয়ে ২৮ ফেব্রুয়ারি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে আদেশ জারি করা হয়। শাস্তি হিসেবে তার বেতন কমিয়ে প্রায় অর্ধেক করা হয়। একই সঙ্গে জানানো হয়, তিনি চাকরি জীবনে আর কোনো পদোন্নতি পাবেন না।
  
‘সরকারি কর্মচারী (আচরণ) বিধিমালা- ১৯৭৯’ অনুযায়ী পাঁচ বছর পরপর সরকারি চাকরিজীবীদের সম্পদ বিবরণী দাখিল এবং স্থাবর সম্পত্তি অর্জন বা বিক্রির অনুমতি নেয়ার নিয়ম রয়েছে। কিন্তু সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা এ নিয়ম মানছেন না। বিধিমালাটি বাস্তবায়নের মাধ্যমে সম্পদ বিবরণী দাখিল ও স্থাবর সম্পত্তি অর্জন বা বিক্রির নিয়ম মানতে সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সিনিয়র সচিব/সচিবদের কাছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে চলতি বছরের ২৪ জুন চিঠি পাঠানো হয়। প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অনেকেই বিষয়টি ইতিবাচকভাবে না নেয়ায় প্রায় ধামাচাপা পড়ে যায় ইস্যুটি।  

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যশিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের গুরুত্বপূর্ণ ১৭টি নথি গায়েব হওয়ার ঘটনায় গত ২৮ অক্টোবর শাহবাগ থানায় একটি জিডি করা হয়। এ ঘটনা চার থেকে পাঁচ কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।  তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কোনো মামলা করা হয়নি।