ঢাকা Wednesday, 24 July 2024

মার্কিন ভিসানীতি বিএনপির জন্যই বুমেরাং হবে : নাছির

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

প্রকাশিত: 21:14, 6 June 2023

মার্কিন ভিসানীতি বিএনপির জন্যই বুমেরাং হবে : নাছির

চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, মার্কিন ভিসানীতি ও স্যাংশন (নিষেধাজ্ঞা) নিয়ে বিএনপির আস্ফালন ও লাফালাফি বেড়েছে। আমরা এটাও জানি, মার্কিন ভিসানীতি ও স্যাংশন বিএনপির জন্যই বুমেরাং হবে। 

কারণ হিসেবে তিনি বলেন, আমরা (আওয়ামী লীগ) একটি সুষ্ঠু নির্বাচন করতে চাই। আমরা জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করেছি। বিএনপি-জামায়াত জনগণের দল নয়, তাই তারা নির্বাচন বানচাল করতে চায়।

মঙ্গলবার (৬ জুন) বিকেলে কুলগাঁও সিটি করপোরেশন কলেজ সংলগ্ন দৌলতশাহী কনভেনশন হলে ২ নম্বর জালালাবাদ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে এসব কথা বলেন আ জ ম নাছির।

কোনো অপশক্তি আওয়ামী লীগের বিজয় রুখতে পারবে না জানিয়ে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতিমধ্যেই ইঙ্গিত দিয়েছেন, তিনিও একটি নির্বাচনকালীন সরকার চান এবং তার নেতৃত্বে সংসদে প্রতিনিধিত্বকারী দলগুলোকে নিয়ে একটি ছোট আকারের সরকার গঠন করা যেতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন। 

নাছির বলেন, তারা (বিএনপি) আন্দোলনের কথা বলছে, কিন্তু মাঠে আন্দোলন কই? বক্তৃতা ও বিবৃতিবাজি ছাড়া তারা আর কী করছে? সেটা সাধারণ মানুষ স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছে।

নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দীন চৌধুরী বলেন, দলের ঐক্য প্রতিষ্ঠায় এবং অভ্যন্তরীণ শক্তি সঞ্চয়ে তৃণমূল স্তরে পরীক্ষিত ত্যাগী নেতারাই সবচেয়ে বড় ভরসা। তাদের প্রতি বিশ্বাস ও আস্থার জায়গাটি আমরা মজবুত করতে চাই। আমরা জানি, সব কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার শক্তি আমাদের আছে। কারণ আমরা ইঙ্গিত পাচ্ছি যে, সামনে অনেক ষড়যন্ত্র হবে। সেই ষড়যন্ত্র মোকাবিলায় আমাদের প্রস্তুত থাকতে হবে এবং জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কে আসুক বা না আসুক - সেটা বড় কথা নয়, বড় কথা হলো উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় নৌকার বিজয় নিশ্চিত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবার প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে বসাতে হবে - এটাই আমাদের প্রত্যাশা ও একমাত্র স্বপ্ন।  

জালালাবাদ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহজাদা কাজী মালেকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. ইয়াকুবের সঞ্চালনায় ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে উদ্বোধকের বক্তব্য রাখেন নগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং বায়েজিদ থানা আওয়ামী লীগ সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক শফিকুল ইসলাম ফারুক। 

বিশেষ অতিথি ছিলেন নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মো. আবু তাহের, নির্বাহী সদস্য গাজী শফিউল আজিম, মহব্বত আলী খান, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের পক্ষে কামরুল হাসান, কাউন্সিলর শাহেদ ইকবাল বাবু, ইউনিট আওয়ামী লীগের মো. হানিফ, নুরুল আলম নুরু ও লোকমান হাকিম কুতুবী। 

দ্বিতীয় অধিবেশনে গোপন ব্যালটের মাধ্যমে সভাপতি পদে আব্দুল মালেক ও মো. ইয়াকুব সমান সমান ভোট পাওয়ায় সভাপতি পদের ফলাফল স্থগিত রাখা হয়। নগর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ পরে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন। 

সাধারণ সম্পাদক পদে হুমায়ুন কবির মুন্নাকে নির্বাচিত করে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়।