ঢাকা শনিবার, ২৮ মে ২০২২

Star Sangbad || স্টার সংবাদ

বিয়েতে নাচায় বরের থাপ্পড়, তুতো ভাইয়ের গলায় মালা দিলেন তরুণী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক 

প্রকাশিত: ১৯:২৩, ২২ জানুয়ারি ২০২২

আপডেট: ১৯:৫২, ২২ জানুয়ারি ২০২২

বিয়েতে নাচায় বরের থাপ্পড়, তুতো ভাইয়ের গলায় মালা দিলেন তরুণী

স্থানীয় রীতি অনুসারে বিয়ের একদিন আগেই ছিল রিসেপশন বা খাওয়া-দাওয়া, নাচ-গানের অনুষ্ঠান। সেই অনুষ্ঠানে ডিজের তালে আত্মীয়দের সঙ্গে নেচেছেন কনে। যা নিয়ে আপত্তি তুলে সরাসরি বর থাপ্পড় মেরে দিলেন হবু স্ত্রীকে। তবে এরপরই চমকে দেওয়া সিদ্ধান্ত নেন তরুণী। ওই তরুণের বদলে তুতো ভাইয়ের গলায় মালা দেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) তামিলনাড়ুর কুড্ডালোর জেলার পানরুতিতে এ ঘটনাটি ঘটে। অভিযুক্ত তরুণের বাড়ি একই জেলার পেরিয়াকাট্টুপালায়মে।

তরুণী ডিজের তালে নাচ করছিলেন অন্য আত্মীয়-বন্ধুদের সঙ্গে। এর মধ্যেই মেয়েপক্ষের এক আত্মীয় তরুণ বর-বধূর হাত ধরে নাচা শুরু করে। যা একেবারেই পছন্দ হয়নি বরের। সে ওই পুরুষটিকে এবং নিজের হবু বধূর থেকে হাত ছাড়িয়ে নেয়। এরপর সে দু’জনকেই ধাক্কা মেরে ফেলে দিলে বধূ উঠে সপাটে পাল্টা থাপ্পড় মারেন বরের গালে। এর পরই দ্রুত সময়ে আরও কড়া সিদ্ধান্ত নেয় তরুণী। ওই মুহূর্তে তাঁর পরিবারকে সে জানিয়ে দেয়, এই ছেলেকে সে বিয়ে করবে না। যা মেনেও নেয় মেয়ের বাড়ির লোক। এরপর পরিবারের সদস্য এক তুতো ভাইকে বিয়ে করে ওই তরুণী।

এদিকে পানরুতির মহিলা পরিচালিত থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন প্রত্যাখ্যাত সেই তরুণ। সে জানিয়েছে, হবু বউকে সে প্রশ্ন করেছিল, কেন অন্যদের সঙ্গে নাচ করছে, তাতে তরুণী উত্তর দেয়, তাঁর ইচ্ছে। মেয়ের পরিবার তাঁকে হেনস্তা করেছে ও হুমকি দিয়েছে বলেও অভিযোগ তরুণের।

যদিও তরুণী সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁর পরিবার বিয়ের অনুষ্ঠানের জন্য ৭ লক্ষ টাকা খরচ করেছে। আর সেই টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে ছেলের পরিবারকে।

তবে এই প্রথম নয়। এর আগেও ভারতে একাধিকবার বিয়ের মণ্ডপে অশান্তির জেরে কনের বাবা বিয়ে ভেঙে দিয়েছেন। সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশে এক কনে বিয়ের আসরে মাল্যদান করতে অস্বীকার করেন। মদ্যপ অবস্থায় মণ্ডপে এসেছিলেন তাঁর হবু বর। জোর করে তাঁকে নাচ করতে বাধ্য করা হচ্ছিল। তাই বাধ্য হয়েই বিয়ে ভেঙে দেন কনে। বিয়ের মণ্ডপে মদ্যপ অবস্থায় নাগিন ডান্সে মজেছিলেন বর। ক্ষুব্ধ হয়ে বিয়ে ভেঙে দেন ২৩ বছরের প্রিয়াঙ্কা ত্রিপাঠী। পরদিনই তিনি অন্যত্র বিবাহ করে ফেলেন।