ঢাকা শনিবার, ২৮ মে ২০২২

Star Sangbad || স্টার সংবাদ

অভিশপ্ত পোভেগ্লিয়া, যেখানে পুড়িয়ে হত্যা করা হয় দেড় লাখ মানুষকে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক 

প্রকাশিত: ১৩:২৯, ১৫ এপ্রিল ২০২২

অভিশপ্ত পোভেগ্লিয়া, যেখানে পুড়িয়ে হত্যা করা হয় দেড় লাখ মানুষকে

প্রায় দুই বছর ধরে সারা বিশ্বে করোনা মহামারীর কারণে আতঙ্ক বিরাজ করছে। তবে পৃথিবীতে এ ধরনের মহামারী এটি প্রথম নয়, অতীতে এমন অনেক ঘটনা ঘটেছে যেখানে মহামারীতে লক্ষাধিক মানুষ মারা গেছে। তবে এখন যে ঘটনাটি বলবো সেটা মাহামারীর কারণে ঘটানো এক হৃদয় বিদারক ঘটনা। জানা যায় ইতালির ভেনিস এবং লিডোর মাঝামাঝি পোভেগ্লিয়া দ্বীপে মহামারীর কারণে লক্ষাধিক মানুষকে জীবন্ত পুড়িয়ে হত্যা করা হয়। পোভেগ্লিয়া দ্বীপ ভেনিস উপসাগরে অবস্থিত। বর্তমানে এই জায়গাটিকে বিশ্বের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর জায়গা বলে মনে করা হচ্ছে। 

মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, ১৬ শতকের শুরুতে ইতালিতে প্লেগ মহামারী দেখা দেয়। পোভেগ্লিয়া দ্বীপে প্লেগ রোগীদের রাখা হয়েছিল। এই মহামারীটি তখন দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছিল যে পরিস্থিতি শাসকদের নিয়ন্ত্রনের বাইরে চলে যায়। কথিত আছে, প্লেগ কাটিয়ে উঠতে শাসকরা এই দ্বীপে প্রায় ১ লাখ ৬০ হাজার মানুষকে জীবন্ত পুড়িয়ে মারার নির্দেশ দিয়েছিলেন।

দ্বীপে আগুন দিয়ে লাখ লাখ মানুষ মারার পর এই দ্বীপেই সব পোড়া লাশ দাফন করা হয়। আশেপাশের লোকেরা এই দ্বীপটিকে অভিশপ্ত এবং ভুতুড়ে মনে করতে শুরু করে। কথিত আছে, নিহতদের আত্মা এখানেই ঘুরে বেড়ায়। শুধু তাই নয়, কেউ কেউ অদ্ভুত কণ্ঠস্বর শোনার দাবিও করেছেন। প্লেগের পর পরই ব্ল্যাক ফিভার নামক রোগও মহামারীর রূপ নেয় এই দ্বীপে । বিজ্ঞানীরা এখন পর্যন্ত এখানে অব্যাহত মহামারীর রহস্য উদঘাটন করতে ব্যর্থ হয়েছেন।

পরে মানসিক রোগীদের এই দ্বীপে রাখা হয়। এখানে একটি হাসপাতালও তৈরি করা হয়েছে। যদিও এই হাসপাতালটি ১৯৬০ সালে বন্ধ হয়ে যায়। এরপর থেকে সাধারণ মানুষ এখানে যেতে ভয় পায়। ইতালি সরকার এই দ্বীপে পর্যটকদের প্রবেশ সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করেছে। বর্তমানে এখানে প্রায় শতাধিক পরিবার বসবাস করলেও এখানে বহিরাগতের আসা সম্পূর্ণ নিষেধ। পরে ২০১৪ সালে ইতালি বিশাল ঋণ পরিশোধ করতে দ্বীপটি বিক্রি করার প্রস্তাব দিলে এক ইতালীয় ব্যবসায়ী লুইগি ব্রুগনারো প্রায় ৪ কোটি টাকায় এই দ্বীপটি কিনে নেন।