ঢাকা রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

Star Sangbad || স্টার সংবাদ

দিনাজপুর বোর্ডে ৪ বিষয়ের এসএসসি পরীক্ষা স্থগিত

সারাদেশ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:৫৩, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২

আপডেট: ১৭:৫৩, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২

দিনাজপুর বোর্ডে ৪ বিষয়ের এসএসসি পরীক্ষা স্থগিত

ফাইল ছবি

দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের অধীনে কু‌ড়িগ্রা‌মের ভূরুঙ্গামারীতে চলমান এসএস‌সি পরীক্ষার ইং‌রে‌জি প্রথম ও দ্বিতীয় প‌ত্রের প্রশ্ন ফাঁ‌সের ঘটনায় চারটি বিষয়ের পরিক্ষা স্থগিত করেছে দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড। বিষয়গুলো হলো গণিত,পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও কৃষিবিজ্ঞান।

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. কামরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে,  ২০২২ সালের এসএসসি পরিক্ষার পরিক্ষার্থীসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে জানানো হচ্ছে যে, দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের অধীন ২০২২ সালের চলমান এসএসসির গণিত (১০৯), পদার্থবিজ্ঞান (১৩৬), কৃষিবিজ্ঞান (১৩৪) এবং রসায়ন (১৩৭) বিষয়ের পরীক্ষা অনিবার্য কারণে স্থগিত করা হলো। স্থগিত করা বিষয়গুলোর পরীক্ষার তারিখ যথাসময়ে জানানো হবে। স্থগিত করা বিষয়গুলো ছাড়া অন্য সব বিষয়ের পরীক্ষা রুটিনে উল্লিখিত সময়সূচি অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হবে।

কুড়িগ্রাম জেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ সামছুল আলম স্টার সংবাদকে বলেন,  কুড়িগ্রামে গতকাল প্রশ্ন পত্র ফাঁসের ঘটনায় দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও সচিব স্যার এসেছেন। এসে ভুরুঙ্গামারীতে অসঙ্গতি পেয়েছেন। এ কারণেই কয়েকটি বিষয়ের পরিক্ষা স্থগিত করেছেন।

উল্লেখ্য কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলার নেহাল উ‌দ্দিন পাইলট বা‌লিকা উচ্চ বিদ‌্যাল‌য়ের সহকারী শিক্ষক রা‌সেল এসএস‌সি পরীক্ষার্থী‌দের ব‌্যাচ ক‌রে কো‌চিং করান। প্রশ্ন ফাঁ‌সে তার সম্পৃক্ততা থাক‌তে পা‌রে ব‌লে স‌ন্দেহ কর‌ছেন সং‌শ্লিষ্টরা। এ ঘটনায় কারা কারা জ‌ড়িত তা বের কর‌তে তদন্ত শুরু ক‌রে‌ছে পু‌লিশ ও গো‌য়েন্দারা।

এদিকে ২০২১ সালের তুলনায় এবার এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীর সংখ্যা কমেছে। তবে বেড়েছে কেন্দ্র ও প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা। এবার মোট পরীক্ষার্থী ২০ লাখ ২১ হাজার ৮৬৮ জন। গত বছর পরীক্ষার্থী ছিল ২২ লাখ ৪৩ হাজার ২৫৪ জন। সে হিসাবে পরীক্ষার্থী কমেছে ২ লাখ ২১ হাজার ৩৮৬ জন।

এবার মোট কেন্দ্র ৩ হাজার ৭৯০টি। গত বছর ছিল ৩ হাজার ৬৭৯টি। সে হিসাবে মোট কেন্দ্র বেড়েছে ১১১টি। এ বছর মোট প্রতিষ্ঠান ২৯ হাজার ৫৯১টি। গত বছর ছিল ২৯ হাজার ৩৫ টি। সে হিসাবে মোট প্রতিষ্ঠান বেড়েছে ৫৫৬টি।