ঢাকা রোববার, ০৭ আগস্ট ২০২২

Star Sangbad || স্টার সংবাদ

শেয়ারবাজারে দরপতনের সর্বনিম্ন সীমা ফের চালু

স্টার সংবাদ

প্রকাশিত: ১৯:১১, ২৮ জুলাই ২০২২

শেয়ারবাজারে দরপতনের সর্বনিম্ন সীমা ফের চালু

শেয়ারবাজারে ফের চালু করা হয়েছে দরপতনের সর্বনিম্ন সীমা বা ফ্লোর প্রাইস। বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের সইকৃত এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করা হয়েছে। আগামী কার্যদিবস বা রোববার থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। 

ফ্লোর প্রাইস হলো, আজ ও আগের চারদিনের ক্লোজিং প্রাইসের গড় দাম হবে প্রতিটি সিকিউরিটিজের ফ্লোর প্রাইস।

বিএসইসির আদেশে বলা হয়েছে, ফ্লোর প্রাইসের ওপরে সিকিউরিটিজের দাম স্বাভাবিক হারে ওঠা-নামা করতে পারবে। তবে কোনো সিকিউরিটিজের দাম ফ্লোর প্রাইসের নিচে নামতে পারবে না। অবশ্য কোম্পানির বোনাস শেয়ার বা রাইট শেয়ারের কারণে ফ্লোর প্রাইসে থাকা সিকিউরিটিজের দাম সমন্বয় হবে।

নতুন তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে বলা হয়েছে, প্রথমদিনের লেনদেনের ক্লোজিং প্রাইসকে ফ্লোর প্রাইস হিসেবে বিবেচনা করা হবে।

প্রসঙ্গত, ঈদুল আজহার পর শেয়ারবাজারে টানা নয় কার্যদিবস দরপতন হয়। এ অবস্থায় পতন ঠেকাতে গত ২৫ জুলাই ৩০ জন বড় বিনিয়োগকারীর সঙ্গে বৈঠক করে পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি।

বিএসইসির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে নিয়ন্ত্রক সংস্থার আহ্বানে সাড়া দিয়ে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ বাড়ানোর আশ্বাস দেন বড় বিনিয়োগকারীরা। সেই সঙ্গে বড় বিনিয়োগকারীরা মার্কেট মেকারের ভূমিকা পালন করবেন বলেও কথা দেন।

এদিকে বিএসইসি বড় বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে বৈঠকে বসছে - এমন খবরে টানা নয় কার্যদিবস দরপতনের পর সোমবার শেয়ারবাজারে কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়। বৈঠকের পরদিন মঙ্গলবারও ঊর্ধ্বমুখী ছিল বাজার। ওইদিন লেনদেনের একপর্যায়ে ডিএসইর প্রধান সূচক ১০৩ পয়েন্ট বাড়লেও লেনদেন শেষে সূচকটি বাড়ে ২৯ পয়েন্ট।

এরপর বুধবার শেয়ারবাজারে আবার বড় দরপতন হয়। ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ৭৪ পয়েন্ট কমে যায়। বৃহস্পতিবারও বড় দরপতন হয়। এদিন ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক কমে ৫৭ পয়েন্ট। এমন পরিস্থিতিতেই ফ্লোর প্রাইস ফের চালু করল বিএসইসি। 

এর আগে ২০২০ সালে দেশে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ শুরু হলে শেয়ারবাজারে ভয়াবহ ধস নামে। সেই ধস ঠেকাতে ওই বছরের ১৯ মার্চ প্রতিটি সিকিউরিটিজের ফ্লোর প্রাইস বেঁধে দিয়েছিল বিএসইসি।