ঢাকা Friday, 12 July 2024

পিএসসির প্রশ্ন ফাঁস : জবানবন্দি দিলেন ৬ জন 

স্টার সংবাদ

প্রকাশিত: 22:15, 9 July 2024

পিএসসির প্রশ্ন ফাঁস : জবানবন্দি দিলেন ৬ জন 

পিএসসির প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে গ্রেপ্তার ১৭ জনের মধ্যে ছয়জন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। যদিও সাতজনের জবানবন্দি দেয়ার কথা ছিল, কিন্তু শেষ পর্যন্ত একজন স্বীকারোক্তি দিতে অস্বীকৃতি জানান। 

মঙ্গলবার (৯ জুলাই) ছয়জনের জবানবন্দি রেকর্ড করেন ঢাকা মহানগর হাকিম তাহমিনা হক।

সংশ্লিষ্ট আদালত পুলিশের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা এসআই আলমগীর হোসেন জানান, যে সাতজনের ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দেয়ার কথা ছিল তাদের মধ্যে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও বর্তমানে ব্যবসায়ী আবু সোলায়মান মো. সোহেল শেষ মুহূর্তে এসে অস্বীকৃতি জানান।

জবানবন্দি দেয়া অন্যরা হলেন - পিএসসি চেয়ারম্যানের সাবেক গাড়িচালক আবেদ আলী, ডেসপ্যাচ রাইডার খলিলুর রহমান, অফিস সহকারী সাজেদুল ইসলাম, ব্যবসায়ী সাখাওয়াত হোসেন ও তার ভাই সায়েম হোসেন এবং বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র লিটন সরকার।

এদিন দুপুরে গ্রেপ্তার ১৭ জনকে আদালতে নেয়া হয়। এর মধ্যে সাতজন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হলে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির সাইবার ইনভেস্টিগেশন অ্যান্ড অপারেশন শাখার অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার জুয়েল চাকমা তাদের জবানবন্দি রেকর্ডের আবেদন করেন। পরে তাদের মহানগর হাকিম তাহমিনা হকের খাস কামরায় নেয়া হয়।

বাকি ১০ জনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন মহানগর হাকিম তাহমিনা হক।

তারা হলেন - পিএসসির দুই উপপরিচালক আবু জাফর ও জাহাঙ্গীর আলম, সহকারী পরিচালক আলমগীর কবির, অডিটর প্রিয়নাথ রায়, নারায়ণগঞ্জের আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের নিরাপত্তা প্রহরী শাহাদাত হোসেন, ঢাকার পাসপোর্ট অফিসের কর্মচারী মামুনুর রশীদ, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজের মেডিকেল টেকনিশিয়ান নিয়ামুন হাসান, সাবেক সেনাসদস্য নোমান সিদ্দিকী ও জাহিদুল ইসলাম এবং আবেদ আলীর ছেলে সৈয়দ সোহানুর রহমান সিয়াম।

প্রসঙ্গত, একটি চক্র প্রায় এক যুগ ধরে পিএসসির অধীনে বিসিএসসহ বিভিন্ন পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসে জড়িত বলে ছয়জনের ছবিসহ একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন রোববার প্রচারিত হয় একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে।

এরপরই সিআইডি তদন্তে নামে। তারা ওই ছয়জন ছাড়াও অন্য যাদের নাম তদন্তে পেয়েছে সেই আবেদ আলী, তার ছেলে সিয়ামসহ মোট ১৭ জনকে ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থান থেকে গ্রেপ্তার করে। এই ঘটনায় পল্টন থানায় একটি মামলা হয়। সিআইডি মামলাটি তদন্ত করছে।

এদিকে সরকারি কর্ম কমিশন প্রশ্ন ফাঁস নিয়ে বেসরকারি টেলিভিশনে প্রাচারিত প্রতিবেদনের বিষয় পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্ত করার জন্য তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি করেছে যেখানে যুগ্মসচিব আব্দুল আলীম খানকে আহ্বায়ক এবং পরিচালক মোহাম্মদ আজিজুল হককে সদস্য সচিব করা হয়েছে। কমিটির অপর সদস্য হচ্ছেন পরিচালক দিলাওয়েজ দুরদানা।