ঢাকা Wednesday, 24 July 2024

শেরপুরে মামলার প্রতিবাদে ইউপি চেয়ারম্যানের সংবাদ সম্মেলন

শেরপুর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: 17:28, 18 September 2023

শেরপুরে মামলার প্রতিবাদে ইউপি চেয়ারম্যানের সংবাদ সম্মেলন

শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার ‘মিথ্যা মামলা, ষড়যন্ত্র ও হয়রানি’র প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন হয়েছে। সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার ১০নং গড়জরিপা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এমএ জলিলের আয়োজনে ইউনিয়ন পরিষদের হলরুমে ওই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। 

সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ইউপি চেয়ারম্যান এম এ জলিল। 

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল বলেন, তিনি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে নিরপেক্ষতা ও সততার সঙ্গে ইউনিয়নের নাগরিকদের সেবা দিয়ে আসছেন এবং সকল প্রয়োজনে জনগণের পাশে থাকার চেষ্টা চালিয়ে আসছেন। নির্বাচনে পরাজিত একাধিক মহল এতে ঈর্ষান্বিত হয়ে নানাভাবে তাকে হয়রানি ও বাধাগ্রস্ত করছে। তারা অত্র ইউনিয়নের গড়জরিপা গ্রামের মো. রুস্তম আলীর স্ত্রী মোছা. ছালেহা খাতুনকে বাদী করে সিআর আমলী আদালত, শ্রীবরদী, শেরপুরের আদালতে একটি সিআর মামলা করিয়েছেন, যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। 

তিনি বলেন, আমাকে এবং আমার পরিবারকে হেয় করতেই ষড়যন্ত্রমূলক এই মিথ্যা মামলা করা হয়েছে, যাতে আমার দুই ছেলে শাকিল আহমেদ এবং অপর চাকরিজীবী ছেলে সাব্বির আহমেদকেও বিবাদী করা হয়েছে। ওই মামলার বাদী এবং সকল সাক্ষীগণ সকলেই ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরে ডিডব্লিউবি চক্রে কার্ডধারী সদস্য হিসেবে নিয়মিত সুবিধা ভোগ করে আসছেন। অথচ মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে তাদের কাছে নাকি আমার দুই ছেলে টাকা নিয়েছে এবং তাদের কার্ডের প্রাপ্য চাল আমি নাকি আত্মসাৎ করেছি!

তিনি বলেন, এরই মধ্যে ১, ৩, ৫, ৭নং সাক্ষীগণ এফিডেভিট মূলে জানিয়েছেন যে, তারা মামলার বিষয়ে কিছুই জানেন না এবং তারা নিয়মিত তাদের কার্ডের বরাদ্দের চাল পেয়ে আসছেন।

তিনি আরও বলেন, তাদের অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন এবং আমাকে হেয় করতে এই মিথ্যা অভিযোগ করা হয়েছে। এতে আমার এবং আমার পরিবারের সম্মান ক্ষুণ্ন হয়েছে। আমি একটি কুচক্রী মহলের হয়রানির শিকার হচ্ছি। এই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আমি এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়ন পরিষদের সচিব এমারুল জাহিদ, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবু বকর সিদ্দিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি সাইফুল্লাহ, আওয়ামী লীগ নেতা সুরুজ্জামানসহ সকল ইউপি সদস্য এবং ইউনিয়নের গণ্যমান্য ব্যক্তিরা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মামলার সাক্ষী আকলিমা বেগম, রাবিয়া আক্তার রেশমী ও সুফিয়া বেগম জানান, তারা মামলার বিষয়ে কিছুই জানেন না, তারা নিয়মিত প্রতিমাসের চাল পেয়ে যাচ্ছেন এবং তাদের কাছে থেকে কেউ কোনো টাকা নেয়নি এবং টাকা দাবিও করেনি। 

এদিকে মামলার বাদী ছালেহা খাতুনের বক্তব্য জানতে তার বাড়িতে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি।