ঢাকা রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

Star Sangbad || স্টার সংবাদ

খুলনায় বন্ধুকে বেঁধে রেখে স্কুলছাত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

সারাদেশ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৬:৩১, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২২

আপডেট: ১৬:৩৩, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২২

খুলনায় বন্ধুকে বেঁধে রেখে স্কুলছাত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

খুলনা মহানগরীর খালিশপুর থানাধীন মদিনাবাগ আবাসিক এলাকায় বন্ধুর সঙ্গে ঘুরতে বেরিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন নবম শ্রেণির এক ছাত্রী (১৬)। এ ঘটনায় অভিযুক্ত তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে খালিশপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাহাঙ্গীর এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টার দিকে ওই এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিরা হলেন- নগরীর দৌলতপুর পাবলা সবুজসংঘ মাঠ এলাকার মো. জয়নাল আবেদীনের ছেলে মো. মেজবাহ উদ্দিন (২৫), মো. সুজন মোল্লার ছেলে মো. ইমন মোল্লা (২০) ও পাবলা বৈরাগী পাড়ার মো. মহারাজ চৌকিদারের ছেলে মো. শিমুল চৌকিদার।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, দৌলতপুর থানা এলাকার বাসিন্দা ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রী সোমবার বেলা ১১টার দিকে তার বন্ধু মারুফের সঙ্গে ঘুরতে বের হয়। পরে দৌলতপুরের শামীম হোটেলে ভুক্তভোগী ও তার বন্ধু অবস্থানকালে মারুফের বন্ধু মেজবাহ ফোন দিয়ে মারুফকে বলে ‘দোস্ত ভাবিকে নিয়ে ঘুরতে আয়’। তখন মারুফ ভুক্তভোগীকে নিয়ে বেলা সোয়া ১১টার দিকে পাবলা সবুজসংঘ মাঠের দিকে যায়। এ সময় সেখান থেকে মো. ইমন মোল্লা, মো. শিমুল চৌকিদার ও মো. মেজবাহ উদ্দীন ভুক্তভোগী ও তার বন্ধু মারুফকে নিয়ে ইজিবাইকযোগে খুলনা মহানগরীর খালিশপুর থানাধীন মদিনাবাগ এলাকায় যায়। পরে সেখানে নিয়ে গিয়ে মারুফকে আটকে রেখে মেজবাহ উদ্দীন, পরে মো. ইমন মোল্লা ও মো. শিমুল চৌকিদার ভুক্তভোগী ছাত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করে। এ সময় ভয়ভীতি দেখিয়ে চলে যায় অভিযুক্তরা। পরে খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পুলিশ। একই সঙ্গে অভিযান পরিচালনা করে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হয়।

এ বিষয়ে খালিশপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাহাঙ্গীর বলেন, সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা করা হয়েছে। ইতোমধ্যে পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত তিনজনকে গ্রেফতার করেছে। পরে তাদেরকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা ধর্ষণের বিষয়টি স্বীকার করেছেন।