ঢাকা রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

Star Sangbad || স্টার সংবাদ

তেলের দামবৃদ্ধি : প্রায় যানবাহনশূন্য ফুলবাড়ী, ভাড়া নিয়ে বিশৃঙ্খলা

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৬:৩৩, ৭ আগস্ট ২০২২

তেলের দামবৃদ্ধি : প্রায় যানবাহনশূন্য ফুলবাড়ী, ভাড়া নিয়ে বিশৃঙ্খলা

জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির ৩৬ ঘণ্টার মধ্যেই দিনাজপুরের ফুলবাড়ীর জনজীবন কার্যত স্থবির হয়ে পড়েছে। রোববার (৮ আগস্ট) দুপুর ১২টার দিকে দেখা যায়, ফুলবাড়ী থেকে বিভিন্ন রুটে কমে গেছে যান চলাচল। অন্যদিনের মতো ব্যস্ততা বা ভিড় নেই তেলের পাম্পগুলোয়। সড়কে লোকজনের চলাচলও কমেছে। দোকানপাটেও ক্রেতা ছিল কম। 

এদিকে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ার পর ফুলবাড়ীতে পরিবহন ভাড়া নিয়ে দেখা দিয়েছে বিশৃঙ্খলা। যাত্রীদের অভিযোগ, অনেক পরিবহন মর্জিমাফিক ভাড়া রাখছে। অন্যদিকে পরিবহন শ্রমিকরা বলছেন, নতুন নির্ধারিত ভাড়া আদায় করা হচ্ছে।

সরকার শুক্রবার (৬ আগস্ট) রাত ১২টার পর থেকে জ্বালানি তেলের দাম বাড়িয়েছে। পরদিন শনিবার ছিল সাপ্তাহিক ছুটির দ্বিতীয় দিন। ছুটির দিনে সাধারণত লোকজন, যানবাহন কম থাকে। তবে রোববার সকাল থেকে ফুলবাড়ীতে মানুষের চলাচল ছিল অস্বাভাবিক কম। 

সকালে বিভিন্ন পেট্রোল পাম্পে গিয়ে দেখা যায়, আগের মতো ভিড় নেই। মাঝেমধ্যে দু-একটি মোটরসাইকেল তেল নিতে আসছে।

উপজেলার চামড়া গুদাম এলাকার ফুলবাড়ী ফিলিং স্টেশনে কথা হয় এনজিওকর্মী আল আমিন মিয়ার সঙ্গে। তিনি জানান, আগে সব সময় পাঁচ লিটার পেট্রোল কিনতেন। এখন দাম বাড়ার কারণে কিনেছেন মাত্র দুই লিটার।

এই পাম্পের তেল সরবরাহকারী শ্রমিক মাজেদুল ইসলাম ও কোরবান আলী বলেন, আগে দিনে ২২৫ থেকে ২৫০ লিটার পেট্রোল বিক্রি হতো। কিন্তু দাম বাড়ার পর ১০০ লিটারও বিক্রি হচ্ছে না। 

পাম্পটির ম্যানেজার লিটন সরকার জানান, ডিজেলের কিছুটা সংকট থাকলেও অন্যান্য জ্বালানি পর্যাপ্ত আছে। তবে ক্রেতা কমে গেছে। 

ফুলবাড়ী কেন্দ্রীয় বাসস্ট্যান্ড থেকে অন্যদিনের তুলনায় রোববার বাস ছেড়েছে অনেক কম। এ কারণে দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা। গাড়ি না পেয়ে অনেককে বাসস্ট্যান্ডসহ বিভিন্ন সড়কের মোড়ে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

দিনাজপুর থেকে বাসে ফুলবাড়ীতে আসা এক এনজিওকর্মী জানান, প্রতি সপ্তাহে অফিসের কাজে দুদিন দিনাজপুর যাতায়াত করতে হয় তাকে। এই রুটের ভাড়া শুক্রবারও ছিল ৫০ থেকে ৬০ টাকা। রোববার থেকে ৯০ টাকা আদায় করা হচ্ছে।

পরিবহন শ্রমিক মিরাজ হোসেন বলেন, আগে ফুলবাড়ী থেকে প্রকৃত ভাড়া ছিল ৭৫ টাকা। কিন্তু নেয়া হতো ৬০ থেকে ৭০ টাকা। বর্তমানে পূর্বের প্রকৃত ভাড়ার থেকে ১৫ টাকা বাড়িয়ে ৯০ টাকা নেয়া হচ্ছে।

একইভাবে ১৮০ টাকার বগুড়ার ভাড়া নেয়া হচ্ছে ২২০ টাকা, রংপুরের ৭০-৭৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১২০ টাকা। বাড়তি ভাড়া আদায় নিয়ে যাত্রীদের সঙ্গে বাসের কন্ডাক্টর ও হেলপারদের বচসা হচ্ছে। 

দিনাজপুর জেলা মোটর পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন ফুলবাড়ী স্ট্যান্ড শাখার সভাপতি আলহাজ মো. মহসিন আলী বলেন, সড়কে যানবাহনের সংকট নেই। তবে যেসব পরিবহনে জ্বালানি ছিল না তারা দাম বৃদ্ধির কারণে অনেকে গাড়ি নামায়নি। পরিবহন শ্রমিক কিংবা মালিকদের পক্ষ থেকে কোনো ধরনের নির্দেশনা দেয়া হয়নি। তবে এত বাড়তি দামে তেল কিনে গাড়ি চালিয়ে মালিক-শ্রমিক কেউই টিকতে পারবেন না। এতে যাত্রীদের সঙ্গে পরিবহন শ্রমিকদের সম্পর্কের অবনতি ঘটছে। 

পরিবহণ মালিক অভিনয় দত্ত বলেন, ডিজেলের দাম বাড়ার কারণে প্রতি ট্রিপে খরচ দুই হাজার টাকা বেড়েছে। অথচ এক ট্রিপে খরচশেষে দুই হাজার টাকা লাভই হয় না।