ঢাকা রোববার, ০৭ আগস্ট ২০২২

Star Sangbad || স্টার সংবাদ

মতলবে জমে উঠেছে কোরবানির পশুর হাট

মতলব (চাঁদপুর) প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৯:০০, ৪ জুলাই ২০২২

মতলবে জমে উঠেছে কোরবানির পশুর হাট

পবিত্র ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী ছেংগারচর বাজারসহ উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকায় জমে উঠেছে কোরবানির পশুর হাট।

সোমবার (৪ জুলাই) উপজেলার সবচেয়ে বড় কোরবানির পশুর হাট ছেংগারচর বাজারে ছিল সাপ্তাহিক পশুর হাটের দিন। এদিন এই বাজার ঘুরে দেখা যায়, হাটে অনেক গরু উঠেছে। ঈদের আরো ছয়দিন বাকি থাকলেও কেনাবেচা ভালো হচ্ছে। হাটে কোরবানির পশুর দামও বেশ সহনীয় বলে জানান ক্রেতারা।

এবার কোরবানির পশুর হাটে দেশি গরুর আধিক্য বেশি। সবচেয়ে বেশি চাহিদা মাঝারি আকারের গরুর। বিক্রেতারা জানান, তাদের গরুগুলোকে কোনো ধরনের ওষুধ খাইয়ে মোটাতাজা করে হাটে তোলা হয়নি। তারা আরো বলেন, দাম ঠিক রেখেই কোরবানির পশু বিক্রির চেষ্টা চলছে। 

ঈদের দুই থেকে তিনদিন আগে থেকে মূলত বেচাকেনা বাড়বে বলে অভিমত ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়ের। 

হাটে স্থানীয়ভাবে লালনপালন করা গরুর পাশাপাশি অন্যান্য জেলা থেকেও গরু এনেছেন ব্যাপারীরা। এছাড়া হাটগুলো ছাগলও উঠেছে পর্যাপ্ত সংখ্যক। প্রতিটি হাটের নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছেন স্থানীয় পুলিশ সদস্যরা। 

হাটে গরু নিয়ে আসা আদুরভিটির খামারি ছানাউল্লাহ আখন জানান, এসব গরুর পরিচর্যা তিনি নিজেই করেছেন। গরুগুলোর খাবার ছিল দেশি ঘাস এবং কুড়া-ভুসি। 

তিনি বলেন, আমি আমার খামারের ১০টি গরু এনেছি। তবে এখনো একটি গরুও বিক্রি হয়নি। আমার বড় ষাঁড়টির দাম চেয়েছি ৪ লাখের বেশি। কিন্তু ক্রেতা বলছেন ৩ লাখ ৮০ হাজার টাকার মতো। এতে লাভ তো দূরের কথা, গরুর পেছনে যে ব্যয় হয়েছে সেই টাকাই উঠবে না। 

আরেক খামারি জাহাঙ্গীর আলম জানান, চলতি বছর কোরবানি ঈদকে সামনে রেখে ১৫টি গরু তৈরি করেছেন তিনি। গরুপ্রতি ১০-১৫ হাজার টাকা লাভ হলেই ছেড়ে দেবেন। এ পর্যন্ত তার তিনটি গরু বিক্রি হয়েছে। 

হাটে আসা ছেংগারচর পৌর বণিক সমবায় সমিতির সাবেক সভাপতি ও ছেংগারচর পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হাজি মনির হোসেন বেপারী জানান, পশুর হাটে এ বছর প্রচুর পশুর আমদানি হয়েছে। দামও মোটামুটি। 

হাটের ইজারাদার মুকুল খান বলেন, এবার পশুর দাম মোটামুটি ক্রেতাদের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে রয়েছে। হাটে গরু উঠেছে প্রচুর। এ বছর গরুর হাসিল (খাজনা) সহনীয় পর্যায়ে রাখা হয়েছে। গরুপ্রতি এক হাজার টাকা করে নেয়া হচ্ছে। যত দামেই কিনুক হাসিল মাত্র ১ হাজার টাকা। আমাদের এ হাটে আগামী শুক্রবার পর্যন্ত কোরবানির পশুর হাট বসবে।

হাটের নিরাপত্তা প্রসঙ্গে মতলব উত্তর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুহাম্মদ শাহজাহান কামাল জানান, পুলিশ সার্বক্ষণিক বাজারে রয়েছে এবং চেক পয়েন্টসহ নজরদারিও রয়েছে। পাশাপাশি কোভিড-১৯-এর বিষয়ে সকলকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য তাগিদ দেয়া হচ্ছে।