ঢাকা বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১

Star Sangbad || স্টার সংবাদ

চমেকে ছাত্রলীগের মারামারি : আহত আকিবের অবস্থা আশঙ্কাজনক

সারাদেশ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৪:৩৩, ৩১ অক্টোবর ২০২১

আপডেট: ১৬:১৫, ৩১ অক্টোবর ২০২১

চমেকে ছাত্রলীগের মারামারি : আহত আকিবের অবস্থা আশঙ্কাজনক

ছবি সংগৃহীত

চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজে (চমেক) ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত মাহাদি জে আকিবের অবস্থা এখনো আশঙ্কাজনক। এ ঘটনায় দোষীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। 

চমেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক শাহেনা আখতারের ধারণা, বাইরের কারো ইন্ধনে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় নগরীর পাঁচলাইশ থানায় ১৬ জনকে আসামি করে মামলা করা হয়েছে। পুলিশ এ পর্যন্ত রক্তিম ও সীমান্ত নামে দুজনকে গ্রেফতার করেছে।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, চমেকের অধ্যক্ষের কক্ষ থেকে বের হওয়ার পর শিক্ষা উপমন্ত্রীর অনুসারীদের ধাওয়া দেয় সাবেক মেয়রের অনুসারীরা। এ সময় দৌড়াতে গিয়ে পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিপরীতে দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আকিব পড়ে যান। এ সময় তাকে মেরে জখম করে প্রতিপক্ষ।

বর্তমানে আইসিইউতে জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে আছে আকিব। মাথায় গুরুতর আঘাতের কারণে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

চমেকের আইসিইউ বিভাগের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর প্রণয় কুমার দও জানান, আকিব এখনো আশঙ্কামুক্ত নয়। তার মাথার হাড়ে ফ্র্যাকচার হয়েছে। সঙ্গে ব্রেইনেও গুরুতর আঘাত পেয়েছে।  

এদিকে ফেসবুকে আকিবের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন একটি ছবি প্রকাশিত হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, আইসিইউতে শোয়া আকিবের মাথা ব্যান্ডেজে মোড়ানো। ধবধবে সাদা ব্যান্ডেজের ওপর লেখা, ‘হাঁড় নেই, চাপ দিবেন না।’ নিচে একটা বিপজ্জনক চিহ্নও এঁকে দেয়া হয়েছে। তার দুই চোখও সাদা ব্যান্ডেজে মোড়ানো।

আকিবের অস্ত্রোপচারের দায়িত্বে থাকা সহকারী অধ্যাপক মাহফুজুল কাদের জানান, তার আঘাত খুব বেশি ছিল। মস্তিষ্কে এবং মাথার হাড়ে মারাত্মক আঘাত রয়েছে। মাথার হাড়ের একটা অংশ খুলে আপাতত তার পেটের চামড়ার নিচে রাখা হয়েছে। কিছুটা উন্নতি হলে সেটা আবার আগের জায়গায় প্রতিস্থাপন করা হবে।

আকিবের বাড়ি কুমিল্লার বুড়িচং থানায়। ছেলের এমন দুঃসংবাদ পেয়ে ছুটে এসেছেন বাবা মিজানুর রহমান ও ভাই তৌফিকুর রহমান। আইসিইউর সামনে স্বজন-বন্ধুরা অপেক্ষা করছেন, আকিব সুস্থ হয়ে ফিরবেন এই বিশ্বাস তাদের। তার বাবা ও ভাই কেবল সবাইকে আকিবের জন্য দোয়া করতে বলেছেন। তবে চিকিৎসকরা বলছেন, আকিব এখনো তাকে শঙ্কাহীন নয়।