ঢাকা বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

Star Sangbad || স্টার সংবাদ

শোভাযাত্রার শাড়ি ভাগাভাগি নিয়ে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ, আহত ৪

স্টার সংবাদ

প্রকাশিত: ১১:৩৪, ৭ জানুয়ারি ২০২৩

শোভাযাত্রার শাড়ি ভাগাভাগি নিয়ে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ, আহত ৪

৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত শোভাযাত্রা এবং অন্য অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও হল শাখার নারী নেতাকর্মীরা শাড়ি পরে অংশ নেন। বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর এই শাড়ি ভাগাভাগি নিয়ে ছাত্রলীগের দুটি পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে চারজন আহত হয়েছেন। আহতরা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ বুদ্ধিজীবী ডা. মোহাম্মদ মোর্তজা মেডিকেল সেন্টার থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) রাত ৮টার দিকে শুরু হওয়া হাতাহাতি ও সংঘর্ষ চলে রাত ১০টা পর্যন্ত।
 
আহতরা হলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক মুক্তিযুদ্ধ ও গবেষণাবিষয়ক উপসম্পাদক ও হলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রনক জাহান রাইন, প্রশিক্ষণ উপসম্পাদক তানিয়া আক্তার তাপসী, ছাত্রলীগের কর্মী সুলতানা ও সাধারণ শিক্ষার্থী শাহিদা আক্তার।  

হল সূত্রে জানা যায়, ছাত্রলীগের সাবেক প্রশিক্ষণবিষয়ক উপসম্পাদক তানিয়া আক্তার তাপসী বঙ্গমাতা হলের শিক্ষার্থী। তিনি ওই হলের সভাপতি-সাধারণ সম্পাকদের বাইরের বলয়ে রাজনীতি করেন। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ছাত্রলীগের নারী নেতা-কর্মীদের শাড়ি দেওয়া হয়। কিন্তু হল শাখার সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে রাজনীতি না করায় তাপসীকে শাড়ি দিতে অস্বীকৃতি জানান তারা।

শাড়ি না পাওয়ায় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শোভাযাত্রায় তাপসী গ্রুপের কর্মীরা আলাদাভাবে যোগ দেন। এতে তাপসীর ওপর হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি কোহিনূর আক্তার রাখি ও সাধারণ সম্পাদক সানজিনা ইয়াসমিন ক্ষিপ্ত হন।  

সন্ধ্যায় হলে ফিরে যাওয়ার পর এ নিয়ে উত্তেজনা তৈরি হয়। তাপসীকে হল থেকে বের দেওয়ার হুকুম দেন সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক। এরপর দুই গ্রুপের মধ্যে কথা কাটাকাটি, হাতাহাতি এবং একপর্যায়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। রাত ৮টার দিকে শুরু হয়ে সংঘর্ষ চলে রাত ১০টা পর্যন্ত।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ওই হলের একাধিক আবাসিক শিক্ষার্থী জানান, কোহিনূর আক্তার রাখি ও সানজিনা ইয়াসমিনের নেতৃত্বেই মারধরের ঘটনা ঘটে।  

জানা যায়, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও হল শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বেনজীর হোসেন নিশির অনুসারীরা হল সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে আছেন। সাবেক সাধারণ সম্পাদক রনক জাহান রাইনের যে গ্রুপ ছিল, সেটি তানিয়া আক্তার তাপসী নিয়ন্ত্রণ করতেন। হল কমিটিতে জায়গা পাননি তাপসী। পরে ঢাবি ছাত্রলীগের নতুন কমিটি হলে তাপসীর গ্রুপের কর্মীরা ঢাবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানভীর হাসান সৈকতের গ্রুপে ভিড়ে যান।  

আহত রনক জাহান রাইন বলেন, ঢাবি ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এসেছেন। তাঁরা বিষয়টি সমাধান করবেন, আমি আর কিছু বলতে চাই না।

ঢাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানভীর হাসান সৈকত বলেন, হল প্রাধ্যক্ষ ও ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত, তাদের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। দ্রুতই এ সমস্যার সমাধান হবে বলে আশা রাখছি।  

এ বিষয়ে হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি কোহিনূর আক্তার রাখি ও সাধারণ সম্পাদক সানজিনা ইয়াসমিনের ব্যবহৃত ফোন নম্বরে কল করা হলেও তারা ধরেননি।