ঢাকা Wednesday, 24 July 2024

রানীশংকৈলে বৃহৎ সমলয়ে শস্য কর্তন, কৃষিযন্ত্র ও বীজ বিতরণ 

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

প্রকাশিত: 17:04, 26 May 2023

রানীশংকৈলে বৃহৎ সমলয়ে শস্য কর্তন, কৃষিযন্ত্র ও বীজ বিতরণ 

সরকারের কৃষি প্রণোদনা ও ভর্তুকি কর্মসূচির আওতায় দেশের বৃহৎ সমলয়ে বোরো ধানের শস্য কর্তন, কৃষিযন্ত্র ও বীজ বিতরণ অনুষ্ঠান হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২৫ মে) ঠাকুরগাঁও জেলার রানীশংকৈল উপজেলার নেকমরদ ইউনিয়নের ভবানিপুর চামারদিঘি সংলগ্ন মাঠে আনুষ্ঠানিকভাবে ধান কেটে বোরো ধানের শস্য কর্তনের শুভ উদ্বোধন করেন ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক মো. মাহবুবুর রহমান। এসময় তিনি কৃষকদের নিয়ে বোরো ধান কর্তন করেন। 

পরে ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক যান্ত্রিক উপায়ে বোরো ধান কর্তন মাঠ পরিদর্শন করেন। এ সময় ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক কৃষকদের পরামর্শ দিয়ে বলেন, বোরো ধান কর্তন আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে সম্ভব হবে। বাংলাদেশে নতুন জাত ও প্রথমবারের মতো ঠাকুরগাঁও জেলায় বিনা-২৫ চাষ ধান চাষ করা হয়েছে। এই ধান কর্তন করা হচ্ছে। চিকন প্রজাতির এ ধানে হেক্টরপ্রতি ৬ মেট্রিক টন ফলন পাওয়া গেছে। সেই সঙ্গে সমলয়ে বাস্তবায়িত হাইব্রিড জাতের সিরজেন্টা-১২০৫-এরও শস্য কর্তন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এটি চাষে হেক্টরপ্রতি ৯/১০ মেট্রিক টন ফলন পাওয়া গেছে। 
তিনি আরো বলেন, আমরা যে মিনিকেট-এর কথা শুনতাম। মিনিকেট মোটা চালকে কেটে চিকন করা হয়। কিন্তু এ চাল এতটাই চিকন যে এটা কাটার দরকার নেই, সরাসরি আমরা ভাতের যে পুষ্টিগুণ এর মাধ্যমে পেয়ে যাব।

জেলা প্রশাসক বলেন, সরকারের কৃষি প্রণোদনা ও ভর্তুকি কর্মসূচির আওতায় কৃষি পর্যায়ে নানামুখী কার্যক্রমে কৃষি অধিদপ্তরের পরামর্শে আমাদের প্রান্তিক পর্যায়ের কৃষকেরা কৃষিক্ষেত্রে সুফল পাচ্ছেন এবং উৎপাদন বৃদ্ধির পাশাপাশি উৎপাদন খরচ কমে যাচ্ছে। এতে কৃষকরা আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন।

রানীশংকৈল কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে ধান কর্তন অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ঠাকুরগাঁও জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মো. সিরাজুল ইসলাম, রানীশংকৈল উপজেলা চেয়ারম্যান শাহরিয়ার আজম, রানীশংকৈল উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল সুলতান জুলকার নাইন কবির, রানীশংকৈল উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইন্দ্রজিত সাহা প্রমুখ। 

পরে ইউনিয়ন বীজ ব্যাংক থেকে ৩৫০ জন কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে ব্রি-৫১, ৮৭, ৯৩ এবং বিনা-১৭ ধানের বীজ ও বারি-১৪, ১৫, ১৭ সরিষা বীজ বিতরণ করা হয়।

এছাড়া সরকারি ভর্তুকির আওতায় রাইডিং টাইপ রাইস রোপণ যন্ত্র দেয়া হয় কৃষক রশিদুলকে। যন্ত্রটির মূল্য প্রায় ১৬ লাখ টাকা। এই মূল্যের ৫০ শতাংশ ভর্তুকি দিয়েছে সরকার। অর্থাৎ অর্ধেক দামে এই কৃষিযন্ত্রটি হাতে পেলেন রশিদুল।  

জেলা প্রশাসক মো. মাহবুবুর রহমান বলেন, এ যন্ত্র বিতরণের মাধ্যমে রানীশংকৈলে কৃষি যান্ত্রিকীকরণের নতুন অধ্যায়ের সূচনা হলো। 

এই যন্ত্র সাধারণ কৃষকের শ্রমিক সংকট নিরসনের পাশাপাশি সময়মতো ধান রোপণ এবং উৎপাদন ব্যয় কমিয়ে আনবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের কৃষিতে এমন উপহার ও সুবিধা ঠাকুরগাঁও জেলাতে প্রথম দেয়া হলো।